আর্জেন্টিনা ম্যাচের আগে পগবার সেই জ্বালাময়ী বক্তৃতা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট ২০১৮ | ১ ভাদ্র ১৪২৫

আর্জেন্টিনা ম্যাচের আগে পগবার সেই জ্বালাময়ী বক্তৃতা

পরিবর্তন ডেস্ক ৬:০৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৮, ২০১৮

print
আর্জেন্টিনা ম্যাচের আগে পগবার সেই জ্বালাময়ী বক্তৃতা

ফাইনালে ক্রোয়েশিয়াকে ৪-২ গোলে হারিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ জিতেছে ফ্রান্স। রাশিয়ায় ফরাসিদের এই বিশ্বকাপ জয়ে মিডফিল্ডার পল পগবা রেখেছেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। শুধু মাঠের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দিয়েই নয়, পগবা বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন উজ্জীবনী বক্তব্যের মাধ্যমেও। দ্বিতীয় রাউন্ডে আর্জেন্টিনা ম্যাচের আগে টিম মিটিংয়ে জ্বালাময়ী বক্তৃতা দেন পগবা। সতীর্থদের নিয়ে শপথ করেন, মাঠে জান বাজি রেখে লড়াই করার। সতীর্থদের উজ্জীবিত করতে বলেন, ‘কে মেসি আর কে মেসি নয়, কাউকে আমরা পরোয়া করব না। মাঠে আমরা স্রেফ তাদেরকে হত্যা করব!’

শিরোপার দাবি নিয়ে রাশিয়ায় যাওয়া ফ্রান্স নিজেদের গ্রুপে চ্যাম্পিয়নই হয়। তবে সেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়াটাই তাদের ফেলে দেয় কঠিন পরীক্ষার মধ্যে। পড়তে হয় কঠিন অর্ধে। দ্বিতীয় রাউন্ডেই মুখোমুখি হতে হয় টুর্নামেন্টের অন্যতম ফেভারিট আর্জেন্টিনার। যে দলটিতে রয়েছেন লিওনেল মেসি নামের এক মহীরুহ।

কঠিন এই পরীক্ষার আগে টিম মিটিংয়ে পগবা তাই সতীর্থদের উজ্জীবিত করতে দীর্ঘ এক বক্তৃতা দেন। সবাইকে মনে করিয়ে দেন নিজেদের শিরোপা লক্ষ্যের কথা। তাই সেই জ্বালাময়ী বক্তব্য ভিডিও করে টিএফ১। এতোদিন পর সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

আসুন জেনে নিই সতীর্থদের একাট্টা করতে সেই জ্বালাময়ী বক্তব্যে কী বলেছিলেন পগবা। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের মিডফিল্ডার বক্তব্যের শুরুটাই করেন উজ্জীবনী শব্দ চয়নের মাধ্যমে, ‘বন্ধুরা, ফুটবলার নয়, আমি আজ মাঠে সবাইকে যোদ্ধা হিসেবে দেখতে চাই। আমি আজকেই বাড়ি ফিরে যেতে চাই না।’

আসলে ২৫ বছর বয়সী পগবার ছোট্ট বক্তৃতার পুরোটাই ছিল তার সতীর্থদের জন্য উজ্জীবনী দাওয়াই। মাঠে নিজেদের উজাড় করে দেয়ার টনিক, ‘আমরা আমাদের যাত্রাটা শেষ করব খুশি মনে। আজ রাতেই আমি বাড়ি ফিরতে চাই না। আমি আগামীকালও এই হোটেলে থাকতে চাই। আর চাই আজ রাতে একটা পার্টি দিতে। আমি চাই, আজ মাঠে আমরা সবাই এক সঙ্গেই মরব। আমি চাই আমরা প্রত্যেকেই একেকজন যোদ্ধা হব, সৈনিক হব।’

বলেই চলেন পগবা, ‘আমরা আজ আর্জেন্টাইনদের হত্যা করব। কে মেসি কে মেসি নন, তার পরোয়ার করব না। আমরা এই ফুটবল বিশ্বকাপটা জিততে এসেছি। মনে রাখতে হবে, সেরা হতে হলে অবশ্যই সেরাদের হারাতে হবে।’

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের মিডফিল্ডার একই রকম বক্তব্য দেন উরুগুয়ের বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনালে ম্যাচের আগেও। তার সেই ছোট্ট বক্তব্যও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল। আর এদিন তার বক্তব্যে নতুন মাত্রা যোগ করেন ফ্রান্সের আরেক বিশ্বকাপজয়ী নায়ক ব্লেইস মাতুইদি। জুভেন্টাসের এই মিডফিল্ডার/উইঙ্গার দুই হলুদকার্ড খড়্গে কাটা পড়ে উরুগুয়ের বিপক্ষে ম্যাচটা খেলতে পারেননি।

পগবা তার বক্তব্যে সতীর্থদের বলেন, মাতুইদির জন্যই তাদের জিততে হবে, ‘বন্ধুরা, আজও একই কথা বলব। আমাদের পেছন ফিরে তাকানোর কোনো সুযোগ নেই। আমরা যা করছি, সেটা অব্যাহত রাখতে হবে। তোমরা কি ১৫ জুলাই দেখতে পাচ্ছ। আমরা সবাই মিলেই তা দেখব! আজ মাতুইদি বেঞ্চে বসে থাকবে। এটা তার জন্য হতাশার, বিরক্তের। সে খেলতে চায়। অন্য যে কারো চেয়েও মাঠে বেশি কিছু করতে চায়। কিন্তু আজ সে খেলতে পারবে না। আজ আমাদের এই যোদ্ধা বন্ধুটির জন্যই মাঠে লড়ব।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘আজ সে মাঠে থাকবে না। কিন্তু আমরা প্রত্যেকেই মনে করব সে আমাদের সঙ্গে আছে। বেঞ্চে বসে থেকে তার বিশ্বকাপ শেষ হোক, এটা আমি চাই না। আমাদের প্রত্যেকেই তাই নিজেদের সেরা খেলাটা খেলতে হবে। তাকে ম্যাচ খেলার সুযোগ করে দিতে হবে। তার জন্যই আজ আমাদের জিততে হবে।’

পগবা বেলজিয়ামের বিপক্ষে সেমিফাইনাল এবং ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ফাইনালের আগেও এমন উজ্জীবনী বক্তব্য দিয়েছিলেন কিনা জানা যায়নি। দিয়ে থাকলে সেই বক্তব্যও নিশ্চয় বেরিয়ে আসবে। তবে পগবার এই জ্বালাময়ী বক্তৃতা যে তার সতীর্থদের এক সুতোয় গেঁথে লক্ষ্য অর্জনে অবিচল করেছিল- ফ্রান্সের শিরোপা জয়ই তার প্রমাণ!

কেআর

 
.


আলোচিত সংবাদ