বর্ষীয়ানের রেকর্ড গড়া ইসাম নায়ক আবার খলনায়কও!

ঢাকা, শনিবার, ২১ জুলাই ২০১৮ | ৬ শ্রাবণ ১৪২৫

বর্ষীয়ানের রেকর্ড গড়া ইসাম নায়ক আবার খলনায়কও!

পরিবর্তন ডেস্ক ১১:০৪ অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০১৮

print
বর্ষীয়ানের রেকর্ড গড়া ইসাম নায়ক আবার খলনায়কও!

সৌদি আরবের বিপক্ষে প্রথমে এগিয়ে গিয়েও জয় ছিনিয়ে নিতে পারেনি মিসর। শেষ মুহূর্তের নাটকে হেরেছে ২-১ গোলে। তাতে ২৮ বছর পর বিশ্বকাপে ফেরাটা সুখকর হয়নি মিসরের। মোহাম্মদ সালাহকে তাই হতাশ হয়েই ফিরতে হচ্ছে। তবে সোমবার সৌদি আরবের বিপক্ষে মিসরের গোলরক্ষক ছিলেন ইসাম এল-হাদারি। মাঠে নেমেই যিনি দারুণ এক রেকর্ড গড়লেন। বিশ্বকাপে সবচেয়ে বয়সী খেলোয়াড়ের রেকর্ড এখন থেকে তার দখলে। রেকর্ড বইয়ে নিজের নাম তোলার দিনে পেনাল্টিও ফিরিয়েছেন তিনি। তখন হয়েছেন নায়ক। কিন্তু শেষ সময়ে আবার গোলও হজম করেছেন। তাই অনেকের চোখে হয়তো ভিলেনও তিনি।

মিসরের হয়ে মরক্কো ও উরুগুয়ের বিপক্ষে খেলার সুযোগ পাননি ইসাম। এদিন শেষ পর্যন্ত মাঠে নামার সুযোগ পেলেন। একই সঙ্গ রেকর্ড গড়ারও। ৪৫ বছর ১৬১ দিন বয়সে বিশ্বকাপের ম্যাচ খেলতে নেমেছেন তিনি। এই টুর্নামেন্টের ইতিহাসের সবচেয়ে বর্ষীয়ান খেলোয়াড় এখন তিনি। এতদিন এই রেকর্ডের ভাগিদার ছিলেন কলম্বিয়ার সাবেক গোলকিপার ফারিদ মনদ্রাগন। ২০১৪ বিশ্বকাপে ৪৩ বছর বয়সে খেলেছিলেন মনদ্রাগন। তিনি ভেঙেছিলেন রজার মিলার রেকর্ড।

মিসর ১৯৯০ বিশ্বকাপের পর এবারই প্রথম খেলতে এসেছে বিশ্বকাপে। ইসামের তাই সুযোগ ছিল না এরআগে বিশ্বকাপে খেলার। ক্যারিয়ারে পাঁচ বার খেলেছেন বিশ্বাকাপ বাছাই পর্বে। সবচেয়ে বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে রেকর্ড বইয়ে নিজের নাম খেলার দিনটিকে অন্যভাবে স্মরণীয়ও করে রেখেছেন। পেনাল্টি ফিরিয়েছেন এই বর্ষীয়ান গোলরক্ষক। প্রথমার্ধের ৪১ মিনিটে সৌদি আরবের ফাহাদ আল-মুওয়াল্লাদের নেওয়া স্পট কিক রুখে দেন তিনি। বিশ্বকাপ ইতিহাসে বসচেয়ে বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে তাই পেনাল্টি রুখে দেওয়ার রেকর্ডটিও এখন ইসামের।

আবার বিশ্বকাপে অভিষেক ম্যাচেও পেনাল্টি ফেরানোর কীর্তি হলো তার। আগের দুই ম্যাচে মিশরের হয়ে খেলার সুযোগ পাননি তিনি। এটিই তার প্রথম ম্যাচ। এবারের বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে লিওনেল মেসির নেওয়া কিক ঠেকিয়ে দিয়েছিলেন বিশ্বকাপে অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা আইসল্যান্ড গোলরক্ষক হ্যানেস থর হ্যালডরসন। ইসামেরটি দিয়ে ১৯৯৬ বিশ্বকাপের পর চতুর্থবার বিশ্বকাপ অভিষেকে পেনাল্টি ঠেকানোর কীর্তি দেখলো বিশ্ব।

কিন্তু ২২ মিনিটে এদিন সালাহর গোলে এগিয়ে যাওয়া মিসরের। এরপর প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে পেনাল্টি থেকে সমতা আনে সৌদি আরব। খেলার শেষ বাঁশি বাজার আগে গোল হজম করে মিশর। তাতে অনন্ত ড্র’র স্বপ্নও মাটিতে লুটে মিসরের। দিন শেষে ইসাম তাই আর হাসতে পালন কই!

টিএআর

 
.



আলোচিত সংবাদ