কান্না প্রসঙ্গে সমালোচকদের ধুয়ে দিলেন নেইমার!

ঢাকা, শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ | ১ পৌষ ১৪২৫

কান্না প্রসঙ্গে সমালোচকদের ধুয়ে দিলেন নেইমার!

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:৪৯ অপরাহ্ণ, জুন ২৩, ২০১৮

কান্না প্রসঙ্গে সমালোচকদের ধুয়ে দিলেন নেইমার!

মানুষ বড় বেশি বাজে কথা বলে! যা ইচ্ছে তাই বলে। এটা ছোটোলোকের কথার মতো লাগে। নেইমার অন্তত তাই মনে করেন। এই যে ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে সুইজারল্যান্ডের সাথে ড্র করলো ফেভারিট ব্রাজিল, তারপর কতো কথা। নেইমারকে তো ধুয়ে দিলেন কতো মানুষ। বিশেষজ্ঞ কিংবা দেশের অনেকেও ছাড়েননি। এখন আবার কথা হচ্ছে দ্বিতীয় ম্যাচে কোস্টা রিকার বিপক্ষে গোল করার পর মাঠেই নেইমারের কান্নায় ভেঙে পড়া নিয়ে। এ নিয়েও কতো কথা! হাস্য রসিকতা। কিন্তু স্টপেজ টাইমের ২ গোলে ২-০ তে ম্যাচ জয়ের আরো কিছু সময় পর মাঠে কান্না নিয়ে নেইমার নিজেই মুখ খুলেছেন। তাতে ধুয়ে দিয়েছেন তার ও ব্রাজিল দলের সমালোচকদের।

ইনস্টাগ্রামে নেইমার লিখেছেন, 'কথা বড় ফালতু জিনিস।' শুক্রবার রাশিয়া বিশ্বকাপে সেন্ট পিটার্সবার্গে কোস্টা রিকার বিপক্ষেও ব্রাজিলের নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলার ছিল ০-০। মনে হচ্ছিল ড্রই হচ্ছে আবার। কিন্তু স্টপেজ টাইম দুই গোল উপহার দিয়েছে ব্রাজিলকে। ৯১ মিনিটে কুতিনহো এবং ৯৭ মিনিটে নেইমার গোল করেছেন। এখন ব্রাজিলের ৪ পয়েন্ট। ৫ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের ম্যাচ বাকি একটি।

দারুণ চাপে পড়ার পর এমন ম্যাচ জয়ের পর আনন্দের কারণ থাকে অনেক। তার উপর রোমারিওর গোলের রেকর্ডও ভেঙেছেন নেইমার। তারো চেয়ে বড় কথা সম্ভবত নিদারুণ চাপ থেকে মুক্তি পেয়েছেন ২৬ বছরের বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফুটবলার নেইমার। সেই স্বস্তি বোঝা গেছে নেইমারের গোল করেই হাঁটু গেড়ে মাঠে কান্না শুরু করায়। যেন একটা শিশু। ম্যাচের পর এ নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে একটি কথাও খরচ করেননি নেইমার। পরে সোশাল মিডিয়া ইনস্টাগ্রামে দিয়েছেন জবাব।

'এখানে আসতে আমাকে কি করতে হয়েছে তা তো কেউ জানে না।' ওই আবেগ ও কান্নার প্রসঙ্গ টেনে নেইমার লিখেছেন, 'কথা বড় বেশি ফালতু জিনিস। এমনকি একটা তোতা পাখিও তো কথা বলতে পারে, কিন্তু কিছু করে দেখানো...খুব কম মানুষই তা করতে পারে!!!'

একটি কান্নার পেছনে কতো কারণই তো থাকতে পারে। নেইমার যা বলছেন তাতে বোঝা যায় নেইমারের এই দিনের কান্নার আড়ালে রয়েছে অনেক কিছু। নেইমারের ভাষায়, 'এই কান্না আনন্দের, ইচ্ছাশক্তির জয়ের, অনেক কিছু টপকে যাওয়ার, জয়ের অদম্য ইচ্ছের। আমার জীবনে কোনো কিছুই সহজ ছিল না। এখনো নেই। তাই না!!!'

ফেব্রুয়ারিতে ক্লাব ফুটবল খেলতে গিয়ে ইনজুরিতে পড়েছিলেন। মার্চে অস্ত্রোপচার। মে মাসের মাঝামাঝিতে পুনর্বাসন শেষে ফেরা। বিশ্বকাপের জন্য ব্রাজিল দলের সাথে প্রস্তুতিতে শুরু থেকেই ছিলেন। কিন্তু শতভাগ ফিট ছিলেন কি? নেইমারের কথায় বোঝা যায় মনের জোরেই তিনি সব পেরে যাচ্ছেন তা শুধু তিনি 'নেইমার' বলেই।

এবং সেই কারণে স্বপ্ন তাড়া করে ফিরছেন আর ঘোষণা দিচ্ছেন, 'স্বপ্নযাত্রা চলছে, স্বপ্ন নয়...এটা মিশন! খেলাটির জন্য ছেলেদের অভিনন্দন। তোমরাই সেরা।' 'ই' গ্রুপে ব্রাজিলের পয়েন্ট এখন ৪। ২৭ জুন তাদের শেষ খেলা সার্বিয়ার সাথে।

সূত্র : ইএসপিএন।

ক্যাট