কেবলই অন্ধকার

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ | ১২ বৈশাখ ১৪২৬

কেবলই অন্ধকার

আফরীন মুক্তি ১০:১০ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৯, ২০১৯

কেবলই অন্ধকার

‘বাবা, আজ অফিসে না গেলে হয় না? থাকো না বাবা, আমার কাছে।’ হঠাৎ ছেলের ডাকে ফিরে তাকালো ফয়সাল।

ছেলেটার দু’দিন ধরে জ্বর। কি একটা ভাইরাল জ্বর এসেছে ইদানিং, ওটাই। ছেলেটা খুব কষ্ট পাচ্ছে, কিছু খেতেও পারছে না। ছেলের শুকনা মুখের দিকে তাকিয়ে একটা দীর্ঘশ্বাস ফেলল ফয়সাল।

‘না রে বাবা, আজ অফিস যেতেই হবে, অনেক কাজ আছে যে।’ বাবা বলার সঙ্গে সঙ্গে ছেলের মুখটা আরও মলিন, শুকনা হয়ে গেল।

‘তাড়াতাড়ি এস বাবা তবে, আমি কিন্তু তোমার জন্য অপেক্ষা করব।’ আচ্ছা, বাবা, আচ্ছা বলে বের হতে যাবে এমন সময় ছোট মেয়েটা সামনে এসে দাঁড়াল। ‘বাবা, আজ কিন্তু আমার জন্য একটা পুতুল আনতেই হবে।’ ফয়সাল একটু থামলো। মেয়েকে একটু আদর করে বলল, ‘আনবো মা, এখন আসি রে মা, দেরি হয়ে যাচ্ছে।’

রুমা দরজার সামনেই দাঁড়িয়ে ছিল। অফিস যাবার সময় সব সময়ই রুমা এমনই দরজার সামনে দাঁড়িয়ে থাকে। রুমা ফয়সালের হাতের দিকে তাকিয়েই বলল, ‘আরে, তুমি তো টিফিন বক্সটাই নাওনি!’

ফয়সাল বের হতে গিয়ে আবারও থেমে গেল। রুমা টিফিন বক্সটা ফয়সালের হাতে তুলে দিল। ফয়সাল রুমার মুখের দিকে একটু তাকাল। অনেক কাজের ঝামেলায় অনেক দিন সবাই মিলে বেড়াতে যাওয়া হয় না। কাল শুক্রবার, ছেলেটার একটু জ্বর কমলে কালই বেড়াতে যাবে ওদের নিয়ে।

ফয়সালের চিন্তাটা বেশি দূর আগায় না। এমনিতেই অনেক দেরি হয়ে যাচ্ছে। অফিস যেতে দেরি হলে খুব সমস্যা হয়ে যাবে।

ঢাকায় একটা বিশতলা ভবনেই ফয়সালের অফিস। অফিসে এসে টেবিলে বসেই একটু খানি স্বস্তি। ঘড়ির দিকে তাকালো ফয়সাল। হুম, ঠিক সময়েই আসতে পেরেছে। টেবিলে অনেকগুলো ফাইল জমা হয়ে আছে। ফয়সাল এখন একটু কাজে মন দিলো। এই যাহ, এখন আবার ইলেকট্রিসিটি গেল কেন?

কি ব্যাপার! হঠাৎ ফয়সালের মনোযোগ অন্যদিকে। এত চিৎকার কেন? ‘আগুন, আগুন’ কারা যেন চিৎকার করছে। তাইতো! লাফ দিয়ে জানালার সামনে দাঁড়ালো ফয়সাল।

নিমিষেই চারদিক অন্ধকার হয়ে গেল। পকেট হাতড়ে মোবাইলটা বের করে ফোন দিল অতি কষ্টে, ‘রুমা, আগুন লেগেছে, জানি না কি হবে!’ কথা শেষ না হতেই তীব্র আলো, প্রচণ্ড তাপ। হাত থেকে মোবাইলটা পড়ে গেল ফয়সালের।

বাচ্চাদের মুখগুলো মনে করার চেষ্টা করছে ফয়সাল। সঙ্গে অন্ধকারে হাঁতড়ে হাঁতড়ে  সিঁড়িটা খুঁজছে। কোন দিকে যেন সিঁড়িটা? মনে করতে পারছে না কেন! কোথায় যেন একটা মোবাইল বাজছে। ঝাঁঝালো তীব্র গন্ধ। ধোঁয়ায় চোখ বন্ধ হয়ে যাচ্ছে... দম বন্ধ হয়ে যাচ্ছে! অন্ধকার সব অন্ধকার।

লেখকদের উন্মুক্ত প্লাটফর্ম হিসেবে পরিচালিত হচ্ছে মুক্তকথা বিভাগটি। পরিবর্তনের সম্পাদকীয় নীতি এ লেখাগুলোতে সরাসরি প্রতিফলিত হয় না।