ঈদের ছুটি কাটাতে বান্দরবানে ফ্যামেলি ট্যুর

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ঈদের ছুটি কাটাতে বান্দরবানে ফ্যামেলি ট্যুর

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:১৭ অপরাহ্ণ, মে ০৮, ২০১৯

ঈদের ছুটি কাটাতে বান্দরবানে ফ্যামেলি ট্যুর

ঈদের ছুটিতে অনেকেই বান্দরবানে ফ্যামেলি নিয়ে ভ্রমণ করতে চান। এবং জানতে চান ফ্যামেলি নিয়ে আসলে কোথায় কোথায় যাওয়া সম্ভব। ফ্যামেলি নিয়ে তো আসলে কোথাও যেতে বাধা নেই। তবে কিছু অপারগতার ব্যাপার আছে। যেখানে সেখানে পরিবারের সকল বয়েসি সবাইকে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয় না। তাছাড়া  বান্দরবান ভ্রমণের মূল পর্বই হলো ট্রেকিং নির্ভর তাই সবার পক্ষে তো ট্রেকিং করে ঘুরে বেড়ানো সম্ভব না। আবার অনেকের কাছে এটা ইচ্ছাশক্তিরও বাইরে। অনেকে আবার পরিবার-পরিজন নিয়ে একটু আরামে আয়েশে বান্দরবান ভ্রমণ করতে চান তাদের জন্য প্লান নিন্মরূপ।

বান্দরবান শহর ও তার আশপাশে গাড়ি নিয়ে যে সকল স্পটে ভ্রমণ করতে পারবেন তার উল্লেখযোগ্য কয়েকটি হলো :

নীলগীরি

নীলাচল

শৈল প্রপাত

চিম্বুক পাহাড়

মেঘলা পর্যটন কেন্দ্র

রামজাদি

স্বর্নমন্দির

উপরোক্ত স্পটগুলো ভ্রমণ করতে ন্যূনতম কতদিন লাগতে পারে সে সম্পর্কে একটু ধারণা নেওয়া যাক।

মোটামুটিভাবে সময় নিয়ে ঘুরে আসতে অন্তত ২টা পূর্ণ দিন প্রয়োজন। আপনি চাইলে আরো বেশি সময় নিয়েও ঘুরতে পারেন। ঘুরার সময় আপনি যত বেশি সময় দেবেন চারপাশে সবকিছু আরো ভালোভাবে সুন্দরভাবে দেখতে পাবেন।

তাহলে ২ দিনে ঘুরতে প্লানটা কেমন হতে পারে তা একটু জেনে নিন।

লোকসংখ্যার উপর ভিত্তি করে সারাদিনের জন্য গাড়ি রিজার্ভ নিয়ে নিলে সবচাইতে ভালো হয়। আপনার লোকসংখ্যা যদি ৩-৪ জন হয় তাহলে অটোরিকশা নিতে পারেন। আর যদি লোক সংখ্যা বেশি হয় তাহলে ৫ সিট/ ৯ সিট/১১ সিটের জিপ নিয়ে নিতে পারেন। কারণ রিজার্ভ গাড়ি যদি না নেন তাহলে লাইনের লোকাল গাড়িতে সময় এবং সবকিছু মিলিয়ে আপনি একটু সমস্যায় পড়ে যেতে পারেন। 

২ দিনের ভ্রমণ প্লান যেমন হতে পারে :

১ম দিন : খুব সকালে রওনা দিয়ে চলে যাবেন নীলগিরি। কিছুটা সময় মেঘের রাজ্যে ভেসে বেড়িয়ে চলে আসলেন। পথে চিম্বুক পাহাড় ও শৈলপ্রপাত পরবে। বিকেলটা অবশ্যই কাটাবেন নীলাচলে। কারণ নীলাচলের সন্ধ্যাটা দেখার মতো একটি দৃশ্য। না দেখলে আপনি অনেক কিছু মিস করতে পারেন।

২য় দিন : শুরু করবেন স্বর্ণ মন্দির দিয়ে। মনে রাখবেন স্বর্ণমন্দিরে হাফপ্যান্ট/থ্রি কোয়াটার প্যান্ট পরে প্রবেশের অনুমতি নেই। আর যেকোনো ধর্মীয় স্থানের পবিত্রতা রক্ষা করার চেষ্টা করবেন। সেখানে গিয়ে জোরে কথা না বলার চেষ্টা করুন। সঙ্গে বাচ্চা থাকলে অবশ্যই তাদের আগে থেকে বুঝিয়ে বলুন যে মন্দিরের ভেতরে হৈচৈ বা চিৎকার করা যাবে না। তারপর চলে যাবেন রামজাদী এটাও একটা মন্দির।

এরপর বান্দরবান শহরে এসে দুপুরের খাবার খেয়ে পুরো বিকেলটা কাটাতে পারেন মেঘলা পর্যটন কেন্দ্রে। মেঘলার ভেতরেও খাবারের ব্যবস্থা আছে। তবে দাম অনেক বেশি পড়বে। তাই আপনি চাইলে বাইরে থেকে খেয়ে নিয়ে মেঘলায় আরাম, বিশ্রাম ও ভ্রমণ সব সেরে নিতে পারেন।

গাড়ি ভাড়া :

বান্দরবানের শহর থেকেই পেয়ে যাবেন প্রয়োজন মতো অনেক গাড়ি। দরদাম করে পছন্দ অনুযায়ী নিতে নিতে পারেন আপনার ভ্রমণের জন্য গাড়ি। এক্ষেত্রে আপনি যে হটেলে উঠবেন তাদের বললেই আপনাকে অটোরিক্সা বা অন্য গাড়ি যোগার করে দিতে পারবে। তবে দরবাম আপনি নিজে সাথে থেকে করবে। নয়তো ভাড়া বেশি দিতে হতে পার।

বান্দরবানে হোটেল : হোটেলের তথ্য পেতে চাইলে এই লিংকে যান : 

তথ্য ও ছবি : TOD HOLIDAYS

ইসি/

 

ভ্রমণ: আরও পড়ুন

আরও