ইন্দোনেশিয়ায় বিস্ময়কর স্থাপত্যশৈলীর মসজিদ

ঢাকা, ৩ এপ্রিল, ২০১৯ | 2 0 1

ইন্দোনেশিয়ায় বিস্ময়কর স্থাপত্যশৈলীর মসজিদ

পরিবর্তন ডেস্ক ৬:২৫ অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০১৯

ইন্দোনেশিয়ায় বিস্ময়কর স্থাপত্যশৈলীর মসজিদ

ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রা দ্বীপে বানদুং শহরে অবস্থিত মসজিদ আল-ইরশাদ। নামে স্বাভাবিক ও সাধারণ মনে হলেও আসলে তা নয়। সাধারণ মিনার থেকে ব্যতিক্রমী গম্বুজ বিহীন মিনার বিশিষ্ট এই মসজিদটি ইন্দোনেশীয় স্থপতি রিদওয়ান কামিলের নকশায় নির্মিত। 

বিচিত্র নকশায় নির্মিত এই মসজিদটি কামিল বিশেষ ধারণার উপর ভিত্তি করে নির্মাণ করেছেন। প্রকৃতি দেখার সুযোগের পাশাপাশি কেবলার দিক উন্মুক্ত রাখা হয়েছে। তিনি আল্লাহর সৃষ্টিকে স্মরণ করিয়ে দেওয়ার প্রয়াস চালিয়েছেন।

মসজিদের ভেতরে আল্লাহর ৯৯ নামের প্রতীক স্বরূপ বক্সের আকারে ৯৯টি বাতি বসানো হয়েছে। রাতের আগমনে মসজিদের বাইরে উজ্জ্বল হয়ে উঠে চিরাচরিত ‘লা ইলাহা ইল্লালাহ’। স্থানীয় লোকেরা মসজিদটিকে আরবি ক্যালিওগ্রাফিক বিল্ডিং হিসেবেই ডাকে।

মক্কার কাবা ঘরের অনুকরণে তৈরিকৃত বর্গাকার এই মসজিদটি ২০১০ সালে নির্মাণ করা হয়। মসজিদের চারপাশে গোলাকার চত্ত্বরটি কাবার তাওয়াফের ধারণা থেকে তৈরি করা।

রিদওয়ান কামিল একইভাবে রাজধানী জাকার্তার মসজিদ জামি দারুস সালামও বিশেষ ধারণার ভিত্তিতে তৈরি করেছেন। সে মসজিদটিকে কেউ কেউ ইন্দোনেশিয় গীর্জার সাথে তুলনা করায় তা স্থানীয়ভাবে প্রত্যাখাত হয়েছিল। সেটিও বিস্ময়করভাবে গম্বুজ বিহীনভাবে নির্মিত।

কামিলের মসজিদের নকশায় গম্বুজের অনুপস্থিতি সম্পর্কে তিনি বলেন, ট্রপিক্যাল আবহাওয়ায় গম্বুজ উপযুক্ত হতে পারে না। একইসাথে তিনি বলেন,

“মসজিদ আল্লাহর ইবাদতের জন্য। এখানে বিল্ডিংয়ের গঠন সম্পূর্ণরূপে মানুষের হাতে। কুরআনে বিল্ডিংয়ের নকশা সম্পর্কে কিছুই বলা হয়নি।”

বিস্ময়কর স্থাপত্যের এই মসজিদ স্থাপত্যবিদ্যাপ্রেমী পর্যটকদের পর্যটনের জন্য আকর্ষণের গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হিসেবে কাজ করছে।

সূত্র: mvslim.com

এমএফ/

 

তাহজিব / মুসলিম ঐতিহ্য : আরও পড়ুন

আরও