শ্রীমঙ্গলে পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে পুলিশের মনিটরিং

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

শ্রীমঙ্গলে পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে পুলিশের মনিটরিং

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি ৭:০৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৮, ২০১৯

শ্রীমঙ্গলে পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে পুলিশের মনিটরিং

শ্রীমঙ্গলে বাজারে ইচ্ছামতো পেঁয়াজের দাম হাঁকা হচ্ছে এমন অভিযোগে বাজার নিয়ন্ত্রণে আনতে শ্রীমঙ্গলে চলছে পুলিশের মনিটরিং। তারই ধারাবাহিকতায় সোমবার (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ) সার্কেল এএসপি আশরাফুজ্জামান নেতৃত্বে বাজার মনিটরিং করা হয়।

সোমবার সকালে শ্রীমঙ্গল শহরের পৌর বাজারের সেন্ট্রাল রোডের পাইকারি আড়তের মধ্য দিয়ে এই মনিটরিং শুরু হয়।

মনিটরিং এর খবর পেয়ে অধিকাংশ পেঁয়াজ ব্যবসায়ী ও মজুদদাররা পেঁয়াজের দাম কমিয়ে বিক্রি করতে দেখা যায়।

সকালে শহরের পাইকারী মার্কেট সেন্ট্রাল সড়ক, পোস্ট অফিস সড়ক ও নতুন বাজার ঘুরে দেখেন এএসপি আশরাফুজ্জামান। এসময় মদিনা স্টোর, মদিনা ভান্ডার, জননী স্টোর ও আক্তার স্টোরে পেঁয়াজের বর্তমান মূল্য যাচাই করা হয় এবং গোডাউনে পেঁয়াজ মজুদ করা আছে কি না তা ঘুরে দেখেন।

পাইকারি বিক্রেতারা জানান, মিয়ানমারের পেঁয়াজ ১৬০ টাকা, মিশরের পেঁয়াজ ১৫০ টাকা ও তুরস্কের পেঁয়াজ ১২০ টাকা করে বিক্রি করছেন।

অভিযানে বাজারের প্রত্যেক পেঁয়াজ ব্যবসায়ীকে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে জানিয়ে সিনিয়র এএসপি আশরাফুজ্জামান বলেন, সারাদেশ ব্যাপি পেঁয়াজের দাম নিয়ে যে একটা অস্থিরতা যা জনমনে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। শ্রীমঙ্গলে এমন পরিস্থিতি যাতে না হয় বা জনগনের ভোগান্তি না হয় সে জন্য আমরা স্থানীয় ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দকে নিয়ে পাইকারি বড় বড় আড়তগুলোতে ভিজিট করেছি। আমরা চাই না পেঁয়াজের দাম নিয়ে জনমনে একটা বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হউক। পাশাপাশি পেঁয়াজ মজুদ করে কেউ যেন কৃত্রিম সঙ্কট তৈরি না করে সে বিষয়ে প্রত্যেক পেঁয়াজ ব্যবসায়ীকে সতর্ক করা হয়েছে।

কেউ যদি ইচ্ছামতো পেঁয়াজের দাম হাঁকান বা বিক্রি করে তবে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে হুঁশিয়ার করে বলেন, আইনের মধ্যে থেকে অভিযুক্ত ব্যবসায়ীদের প্রয়োজনে জেল জরিমানা করা হবে। এছাড়া পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত বাজারে পুলিশের এই মনিটরিং অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মো. ইয়াহিয়া খান বলেন, বাজার স্থিতিশীল রাখার জন্য ব্যবসায়ী সমিতির পক্ষ থেকে বাজারে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। এখানে ব্যবসায়ী অধিক মুনাফায় পেঁয়াজ বিক্রি করছেন না। এছাড়া ব্যবসায়ীদের কাছে পেঁয়াজের কোনো মজুদ নেই। 

এদিকে বাজারে পুলিশের মনিটরিংয়ের পর থেকে পৌর বাজারে খুচরা দোকানগুলোতে পেঁয়াজের দাম কেজি প্রতি ২০ থেকে ৪০ টাকা দাম কমে এসেছে বলে ক্রেতারা জানান।

সোমবার খুচরা বাজারে সর্বোচ্চ ১৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে।

এর আগে রোববার পর্যন্ত শ্রীমঙ্গলের খুচরা বাজারে প্রতিকেজি পেয়াজ ২৫০ টাকা ও পাইকারি বাজারে ২৩০ থেকে ২৩৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছিল।

বাজার মনিটরিংয়ে উপস্থিত ছিলেন ওসি মো. আব্দুছ ছালেক, ওসি (তদন্ত) সোহেল রানা, শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মো. ইয়াহিয়া খান, সহ সভাপতি শামীম আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মো. কামাল হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক আক্তার হোসেনসহ স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীরা।

এমইএ/এমকে

 

সিলেট: আরও পড়ুন

আরও