সিলেটে ভর্তি পরীক্ষার্থীদের ভোগান্তি, তৎপর প্রশাসন

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

সিলেটে ভর্তি পরীক্ষার্থীদের ভোগান্তি, তৎপর প্রশাসন

দিপু সিদ্দিকী, সিলেট ১০:৪৯ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৫, ২০১৯

সিলেটে ভর্তি পরীক্ষার্থীদের ভোগান্তি, তৎপর প্রশাসন

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষ প্রথম সেমিস্টারের ভর্তি পরীক্ষা আগামীকাল শনিবার (২৬ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিবছরই ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা পরিবহন ও আবাসন সংকটে ভোগেন। এ বছরও পরিবহন সংকটের পাশাপাশি বিভিন্ন হোটেল-মোটেলে থাকার জায়গার সংকট দেখা দিয়েছে।

এ ছাড়া অতীত অভিজ্ঞতা থেকে পরীক্ষার দিন পরীক্ষার্থীদের পরিবহন শ্রমিক কর্তৃক হয়রানি যাতে এ বছর না হয়, তার জন্য ১৩ দফা নির্দেশনা দিয়েছে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ।

পাশাপাশি ফিরতি গাড়ির টিকিটেও অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ প্রতিবারই ওঠে। এবার শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের ভোগান্তি এড়াতে নানামুখী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

শনিবার সকাল ৯টায় এ ইউনিটের ও দুপুর ২টায় বি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ হাজার ৭০৩টি আসনের বিপরীতে এবার আবেদন করেছে ৭০ হাজার ৫৫৪ জন শিক্ষার্থী। সে হিসাবে প্রতি আসনের বিপরীতে ৪১ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেবেন।

প্রশাসনের হিসাব মতে, এ বছর শিক্ষার্থী ও অভিভাবক মিলে সিলেটে আগতদের সংখ্যা ২ লাখ ছাড়িয়ে যাবে। ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসে এবং সিলেট শহরে আসতে শুরু করেছে। তবে সিলেট শহরের হোটেল ও সিএনজি ড্রাইভারদের অতিরিক্ত ভাড়া দাবির সিন্ডিকেটের কারণে হয়রানির শিকার হচ্ছেন ভর্তিচ্ছু ও অভিভাবকরা।

প্রতিবছরই ভর্তি পরীক্ষার সময়টাকে উৎসবের মতো মনে করেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের নানা ধরনের সহযোগিতা করে থাকেন তারা। হল ও মেসে নিজেদের সিট ছেড়ে দেন ভর্তিচ্ছুকদের জন্য। পরীক্ষার আগের রাতে নিজেরা আড্ডাবাজি কিংবা রাত জেগে ভর্তিচ্ছুকদের থাকার ব্যবস্থা করে দেন। এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা শিক্ষার্থীদের স্ব স্ব জেলা কিংবা উপজেলাভিত্তিক সংগঠনগুলোও নানা ধরনের সহযোগিতা করে থাকে।

প্রতিবছরই যাতায়াতের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের ভাড়া বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। সিএনজি অটোরিকশার ১০ টাকার ভাড়া ক্ষেত্র বিশেষে ১০০ টাকা আদায়ের অভিযোগও রয়েছে। এ ছাড়া ১০/১৫ দিন আগ থেকে হোটেল, মোটেল বুকিং হয়ে যাওয়ার কারণে অনেকে আবাসন সমস্যার মুখোমুখি হন। এ সুযোগে কিছু হোটেল মালিক দ্বিগুন কিংবা তিনগুন ভাড়া আদায়ের ইতিহাসও রয়েছে। তবে পরিবহন শ্রমিক কিংবা হোটেল কর্তৃপক্ষ অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিষয়টি অস্বীকার করে আসছে।

সিলেটের সিএনজি অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জাকারিয়া বলেন, পরিবহনের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় কিংবা শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের সাথে যাতে কোনো ধরনের অসদাচরণ না হয় সেজন্য একাধিক টিম গঠন করেছে সিএনজি অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন। পরীক্ষার দিন সকালে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও পরীক্ষা কেন্দ্রগুলোর আশপাশে নজরদারি করবে তারা।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মো. জেদান আল মুসা বলেন, পরীক্ষার্থীদের হয়রানি বন্ধ ও ভাড়া নৈরাজ্য প্রতিরোধসহ ১৩ দফা নির্দেশনা জারি করেছে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ। পাশাপাশি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে চেকপোস্ট স্থাপন করে নিরাপত্তা নিশ্চিতের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

ডিএস/আরপি

 

সিলেট: আরও পড়ুন

আরও