নৌকাডুবিতে শিশুসহ আরো ৪ জনের লাশ উদ্ধার

ঢাকা, রবিবার, ১৩ অক্টোবর ২০১৯ | ২৭ আশ্বিন ১৪২৬

নৌকাডুবিতে শিশুসহ আরো ৪ জনের লাশ উদ্ধার

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ১০:১৪ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৯

নৌকাডুবিতে শিশুসহ আরো ৪ জনের লাশ উদ্ধার

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার কালিকুটা হাওরের নৌকাডুবিতে আরো ৪ নারী ও শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এর আগে রাতে ৪ শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়। এ নিয়ে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৮ জন।

বুধবার সকাল ৭টার দিকে চারজনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ ও স্থানীয়রা।

উপজেলার রফিনগর ইউপি চেয়ারম্যান রেজওয়ান খান ও চরনারচর ইউপি চেয়ারম্যান রতন কুমার দাস তালুকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আজ সকালে যাদের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে তারা হলেন-রফিনগর ইউনিয়নের মাছিমপুর গ্রামের আরজ আলীর স্ত্রী রহিতুন  নেছা (৩৫), একই গ্রামের জাসদ মিয়ার  মেয়ে শান্তা  বেগম (৪), চরনাচর ইউনিয়নের  পেরুয়া গ্রামের নছিবুল্লাহর স্ত্রী করিমা খাতুন(৬০) এবং একই ইইনয়নের নোয়ারচর গ্রামের আফজালের ছেলে আসাদ মিয়া (৫)।

এ ছাড়াও  নোয়ারচর গ্রামের আফজালের স্ত্রী আজিরুন নেছা (৩৫) ও মাছিমপুর গ্রামের  আরজ আলীর মেয়ে তাসমিন (১১) নিখোঁজ রয়েছে।

উল্লেখ্য, গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার রফিনগরের ইউনিয়নের মাছিমপুর  থেকে নৌকায় করে অন্তত ৩০ জন নারী ও শিশু একই উপজেলার চরনারচর ইউনিয়নের  পেরুয়া হাসনাবাজ  গ্রামের ফিরোজ আলীর ছেলের বিয়ের দাওয়াত খেতে যাচ্ছিলেন। বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে কালিকুটা হাওরের মধ্যবর্তী স্থানে পৌঁছলে হঠাৎ নৌকাটি ডুবে যায়।

রাত ৮টার দিকে স্থানীয়রা রফিনগর ইউনিয়নের মাছিমপুর গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে শামীম (২), একই গ্রামের বদরুল মিয়ার ছেলে প্রতিবন্ধী আবির (৩), চরনারচর ইউনিয়নের  নোয়ারচার গ্রামের  আবজালের  ছেলে  সোহান (১৮ মাস) এবং পেরুয়া হাসনাবাজ গ্রামের ফিরোজ আলীর আড়াই বছরের ছেলে  সিফাতুলের লাশ উদ্ধার করে।

এর পরও ছয়জন নিখোঁজ ছিল। আজ সকালে নিখোঁজদের মধ্যে ওই চার নারী ও শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে আরো দুইজন নিখোঁজ রয়েছে।

রফিনগর ইউপি চেয়ারম্যান রেজওয়ান খান আরো জানান, বুধবার সকাল ৬টা থেকে তিনি নিজে ও দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)  কে এম নজরুল ইসলামসহ পুলিশ কালিকুটা হাওরে নিখোঁজদের উদ্ধারে অভিযান চালাচ্ছেন।

এসসি/আরপি
আরও পড়ুন...
সুনামগঞ্জে নৌকাডুবিতে ৪ শিশুর মৃত্যু 

 

সিলেট: আরও পড়ুন

আরও