বিয়ে বাড়িতে খেয়ে নারীর মৃত্যু, অসুস্থ ৯৯

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ | ২ কার্তিক ১৪২৬

বিয়ে বাড়িতে খেয়ে নারীর মৃত্যু, অসুস্থ ৯৯

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ৫:৩২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৯

বিয়ে বাড়িতে খেয়ে নারীর মৃত্যু, অসুস্থ ৯৯

সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার সাদকপুর গ্রামে মৃত প্রাণের দাসের মেয়ের বিয়েতে খাবার খেয়ে জলি রানী দেব (৩৫) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে।

ওই খাবার খেয়ে বর-কনেসহ  দু’পক্ষের কমপক্ষে ৭৭ জন লোক সিলেট, সুনামগঞ্জ ও দিরাই হাসপাতালে ভর্তি ও প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন ২২ জন।

গুরুতর অসুস্থ জলি রানী দেবকে সুনামগঞ্জ ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতাল থেকে শুক্রবার বেলা ১১টায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মৃত জলি রানী দেব সুনামগঞ্জ শহরতলীর ওয়েজখালির সঞ্জু দেবের স্ত্রী।

সুনামগঞ্জ ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালের বরাত দিয়ে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সহিদুর রহমান জলি রানী দেবের মৃত্যু বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সুনামগঞ্জ ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতাল ও জেলার দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে রাত পৌনে ১১টা পর্যন্ত সুনামগঞ্জ ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালে অন্তত ৪৫ জনকে ভর্তি করা

হয়। এর মধ্যে বৃহস্পতিবার সুনামগঞ্জ ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতাল থেকে কনের মা চন্দ্রা রানী দাস ও তাদের আত্মীয় বৃষ্টি রানী দাস (২০)কে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। 

অপরদিকে একই সময়ে একই বিয়ের অনুষ্ঠানে খেয়ে বৃহস্পতিবার বরপক্ষের ১৮ জন ও শুক্রবার ১৯ জন দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছেন এবং চিকিৎসা নিয়েছেন ২২ জন রোগী। দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ভর্তিকৃত ৫ জনকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শুক্রবার দুপুরে রেফার করা হয়।

দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহবুবুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

সূত্র জানায়, সদর উপজেলার সাদকপুর গ্রামের মৃত প্রাণেশ দাসের মেয়ের সঙ্গে দিরাই উপজেলার ডাইয়ার গাঁও গ্রামের মৃত মহেন্দ্র দাসের ছেলে মিহির দাসের সঙ্গে বুধবার বিয়ের দিন ধার্য ছিলো। বুধবার দিনগত রাতে খাওয়ার পর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে বিয়ে বাড়িতে খাওয়া লোকজন অসুস্থ হয়ে সুনামগঞ্জ ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালে আসতে শুরু করেন।

সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. আশুতোশ দাস ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, প্রথামিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে হাসপাতালে ভর্তিকৃতরা ফুড পয়জনিংয়ে আক্রান্ত হয়েছেন।

এইচআর

 

সিলেট: আরও পড়ুন

আরও