সুরমা ও কুশিয়ারায় পানি কিছুটা কমেছে

ঢাকা, ১৭ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

সুরমা ও কুশিয়ারায় পানি কিছুটা কমেছে

সিলেট ব্যুরো ৪:০১ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০১৯

সুরমা ও কুশিয়ারায় পানি কিছুটা কমেছে

সিলেটের সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর পানি কিছুটা কমেছে। সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর পানি কানাইঘাট, সিলেট, আমলসিদ ও শেওলা পয়েন্টে গত তিনদিন ধরে বিপাদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। নদ নদীর পানি ধীর গতিতে কমলেও প্লাবিত বিভিন্ন এলাকা থেকে নামে নি। ফলে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি অব্যাহত রয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস সংক্রান্ত কন্ট্রোল রুম জানিয়েছে, সোমবার সুরমা নদীর পানি সিলেটের কানাইঘাট পয়েন্টে বিপদসীমার ১১০ সেন্টিমিটার, সিলেট পয়েন্টে বিপদসীমার ৫১ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে ও কুশিয়ারা নদীর পানি জকিগঞ্জের আমলসিদ পয়েন্টে বিপদসীমার ১৪৬ সেন্টিমিটার ও শেওলা পয়েন্টে ৯৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।

গত কয়েকদিনে নদ নদীর পানি বাড়ার কারণে বিভিন্ন হাওর ও সিলেট নগরীর নিম্নাঞ্চলে পানি প্রবেশ করায় জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। অনেক বাড়িঘর বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় বাসিন্দারা ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন। নদ নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ার কারণে প্লাবিত বিভিন্ন এলাকায় স্থায়ী জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে।

সিলেট নগরীর উপশহর, তের রতন, সাদিপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় মানুষ পানিবন্দি জীবনযাপন করছেন। বিভিন্ন বাসাবাড়ি ও প্রতিষ্ঠানে পানি প্রবেশ করায় জীবনযাত্রা থমকে আছে। এছাড়া উপশহরের বিভিন্ন ব্লকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ রাস্তায় হাটু পরিমাণ পানি জমে স্থায়ী জলাবদ্ধতায় রূপ নিয়েছে।

এছাড়া রাস্তায় পানি উঠে যাওয়ায় সিলেটের সাথে গোয়াইনঘাট উপজেলা সদরের ভেঙে পড়া যোগাযোগ ব্যবস্থা এখনো সচল হয়নি। বিভিন্ন উপজেলায় সরকারি ত্রাণ পৌঁছেছে। পাশাপাশি বন্যা কবলিত এলাকায় খাবার পানিও সংকট দেখা দিয়েছে।

সিলেটের জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বন্যার্তদের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে সিলেটে ৫০০ মেট্রিক টন চাল, নগদ ৮ লাখ ও ২০০০ প্যাকেট শুকনো খাবার বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

ডিএস/এএসটি

 

সিলেট: আরও পড়ুন

আরও