স্কুলছাত্র হত্যায় দুই ছেলেসহ বাবার যাবজ্জীবন

ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৪ কার্তিক ১৪২৬

স্কুলছাত্র হত্যায় দুই ছেলেসহ বাবার যাবজ্জীবন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ২:০৩ অপরাহ্ণ, জুন ১৭, ২০১৯

স্কুলছাত্র হত্যায় দুই ছেলেসহ বাবার যাবজ্জীবন

সুনামগঞ্জে স্কুলশিক্ষার্থী রুবেল হত্যা মামলায় দুই ছেলেসহ বাবার যাবজ্জীবন ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও দুই মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মির্জা হাছন আলী এবং তার ছেলে নোমান মিয়া ও কামাল মিয়া।

রায়ে মির্জা মশ্রব আলী, নাছির উদ্দিন খান পাঠান প্রকাশ নিশি মিয়া, শায়েস্তা মিয়া ও বাবুল মিয়া বেকসুর খালাস পেয়েছেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০০০ সালের ২০ আগস্ট রাতে জেলার তাহিরপুর উপজেলার চিকসা গ্রামের রনজিৎ পুরকায়স্থের ছেলে রুবলকে তার সহপাঠী নোমানের মাধ্যমে জরুরি কাজে ডেকে নেন মির্জা হাছন আলী।

পরে রাত ২টার দিকে চোর চোর চিৎকারে ঘর থেকে বের হয়ে রনজিৎ চোরের সন্ধান করতে থাকেন। এ সময় মির্জা হাছন তাকে জানান, চোর তোদের বাড়িরই। পুকুর পাড়ে গিয়ে দেখ পড়ে আছে।

এরপর রনজিৎ পুকুর পাড়ে গিয়ে ছেলেকে রক্তাক্ত অবস্থায় পান। দ্রুত তাকে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

হাসপাতালে নেয়ার পথে রুবেল বাবাকে জানান, মির্জা হাছন আলীর নির্দেশে তার ছেলে নোমান ও কামাল ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে তাকে পুকুর পাড়ে রেখে গেছে।

এ ঘটনার পরদিন ২১ আগস্ট রুবেলের বাবা রনজিৎ বাদী হয়ে তাহিরপুর থানায় মির্জা হাছন আলী, তার ভাই মির্জা মশ্রব আলী, হাছনের ছেলে নোমান মিয়া ও কামাল মিয়া, একই গ্রামের মৃত মোক্তার আলী খান পাঠানের ছেলে নাছির উদ্দিন খান পাঠান, ছোয়াব মিয়ার ছেলে শায়েস্তা মিয়া ও বাবুল মিয়াকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

তদন্ত শেষে পুলিশ আদালতে চার্জশিট দাখিল করার পর দীর্ঘ শুনানি হয়। অবশেষে সোমবার এই রায় এলো।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর সোহেল আহমদ ছইল মিয়া। আসামিপক্ষে ছিলেন- অ্যাডভোকেট রবিউল লেইছ ও সৈয়দ জামিলুল হক।

এসসি/আরপি

 

সিলেট: আরও পড়ুন

আরও