গরুর খুরা রোগের টিকা উদ্ভাবন: যবিপ্রবি উপাচার্যকে সংবর্ধনা

ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯ | ২৯ আশ্বিন ১৪২৬

গরুর খুরা রোগের টিকা উদ্ভাবন: যবিপ্রবি উপাচার্যকে সংবর্ধনা

যবিপ্রবি প্রতিনিধি ২:৪৬ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০১৮

গরুর খুরা রোগের টিকা উদ্ভাবন: যবিপ্রবি উপাচার্যকে সংবর্ধনা

গরুর খুরা রোগের কার্যকর টিকা উদ্ভাবন করায় যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (যবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেনকে ফুলেল সংবর্ধনা জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্যরা।

মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একাডেমিক ভবনের গ্যালারিতে আয়োজিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তাঁকে ফুল দিয়ে সংবর্ধনা জানানো হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, কর্মকর্তাবৃন্দ, কর্মচারী সমিতি, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ যবিপ্রবি উপাচার্যকে ফুল দিয়ে অভিনন্দন জানান। পরে উপাচার্যকে মিষ্টিমুখ করান শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আনিছুর রহমান।
 
গত ১৬ অক্টোবর বিকেলে রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ যবিপ্রবির উপাচার্য ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীববিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে ১৭ সদস্যের একদল গবেষক গরুর খুরা টিকা উদ্ভাবন করেছেন বলে ঘোষণা দেন।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, আমি সেই দিন সবচেয়ে বেশি খুশি হবো, যেদিন গবেষণায় এই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকেরা আমাকে ছাড়িয়ে যাবেন। আশা করি, আপনার আমাকে ছাড়িয়ে যাবেন।

তিনি বলেন, সমন্বিত উন্নয়নের জন্য আমাদের নতুন নতুন জ্ঞান উদ্ভাবন করতে হবে। দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে উদ্ভাবনের গুরুত্ব তুলে ধরে শিক্ষকদের উদ্দেশ করে অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, দেশের উন্নয়ন করতে হলে আপনাদের উদ্ভাবক হতে হবে। দেশের অর্থনীতিকে মজবুত করতে হলে নতুন নতুন উদ্ভাবক তৈরি করতে হবে। গবেষণার জন্য পর্যাপ্ত অর্থ ‘নাই নাই’ বললে হবে না। বর্তমান সরকার গবেষণায় যেসব সুযোগ দিচ্ছে তা গ্রহণ করতে হবে। জ্ঞানের নতুন দ্বার উন্মোচন করতে হবে।

যবিপ্রবিকে নিয়ে অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন তার স্বপ্নের কথাও জানান। তিনি বলেন, একটা দেশের পরিবর্তন আনতে পারে নবীনেরা। যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী নবীন। আমাদের মাত্র কয়েকজন প্রবীণদের দলে। সুতরাং প্রবীণদের বুদ্ধি আর নবীনদের শক্তির মাধ্যমে আমরা যবিপ্রবিকে জ্ঞান সৃষ্টির একটি সুতিকাগাঁরে রূপান্তর করবো।

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আনিছুর রহমানের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ আবুল হোসেন, ডিন কমিটির আহ্বায়ক ড. কিশোর মজুমদার, কর্মকর্তা সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. হেলালুল ইসলাম, কর্মচারী সমিতির সভাপতি এস এম সাজেদুর রহমান জুয়েল, যবিপ্রবি ছাত্রলীগের সভাপতি সুব্রত বিশ্বাস প্রমুখ।

এনএস/আরজি

 

সাফল্য: আরও পড়ুন

আরও