রিং সাইন টেক্সটাইলের ডিভিডেন্ড ও মুনাফা ঘোষণা

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

রিং সাইন টেক্সটাইলের ডিভিডেন্ড ও মুনাফা ঘোষণা

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৬:০০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২০, ২০১৯

রিং সাইন টেক্সটাইলের ডিভিডেন্ড ও মুনাফা ঘোষণা

পুঁজিবাজারের বস্ত্র খাতে লেনদেন শুরুর অপেক্ষায় থাকা রিং সাইন টেক্সটাইল লিমিটেড ৩০ জুন, ২০১৯ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। একই সময় কোম্পানিটি ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ শেষে চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

বুধবার কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ সভা শেষে বিনিয়োগকারীদের জন্য ঘোষিত ডিভিডেন্ড ও প্রথম প্রান্তিকের মুনাফা প্রকাশ করা হয়েছে।

জানা যায়, ৩০ জুন ২০১৯ সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৫ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৭২ টাকা। এছাড়া ৩০ জুন ২০১৯ শেষে শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৪.৮৮ টাকা।

ঘোষিত ডিভিডেন্ড বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য এ কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। এ সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ২২ ডিসেম্বর।

প্রথম প্রান্তিকে মুনাফা বেড়েছে

চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিক (জুলাই-সেপ্টেম্বর’১৯) শেষে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৭০ টাকা। যা আগের বছরের একই সময় ছিল ০.৫০ টাকা। অর্থাৎ প্রথম প্রান্তি শেষে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় বেড়েছে ০.২০ টাকা।

সূত্র জানায়, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৬৭৯তম সভায় রিং সাইন টেক্সটাইলের আইপিও অনুমোদন দেয়া হয়। কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে অভিহিত মূল্যে ১৫ কোটি শেয়ার ছেড়ে ১৫০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে।

উত্তোলিত অর্থ দিয়ে কোম্পানিটি যন্ত্রপাতি ও কলকব্জা ক্রয়, ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে। এর মধ্যে মেশিনারিজ আমদানিতে খরচ হবে ৯৬ কোটি ৪০ লাখ টাকা। ঋণ পরিশোধ করা হবে ৫০ কোটি টাকা। আর আইপিও বাবদ খরচ হবে ৩ কোটি ৬০ লাখ টাকা।

৩০ জুন, ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৯৯ টাকা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ১.৮৪ টাকা। আলোচ্য সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য দাঁড়িয়েছে ২৩.১৭ টাকা। আলোচ্য সময়ে কোম্পানি নিট মুনাফার পরিমাণ ছিল ৫৫ কোটি ৪২ লাখ টাকা।

কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ৪৪০ কোটি টাকা। আইপিও শেয়ার বাদে পরিশোধিত মূলধন ২৮৫ কোটি ৫ লাখ টাকা। আর আইপিও শেয়ার ধরে পরিশোধিত মূলধন ৪৩৫ কোটি ৫ লাখ টাকা। প্রতিটি শেয়ারের অভিহিত মূল্য হবে ১০ টাকা।

কোম্পানিটি ১৯৯৭ সালের ২৮ ডিসেম্বর একটি প্রাইভেট প্রতিষ্ঠান হিসেবে যাত্রা শুরু করে। ২০১৭ সালের ৮ জুন কোম্পানিটি পাবলিক লিমিটেডে রূপান্তর হয়। আর ১৯৯৮ সালের আগস্ট মাসে বাণিজ্যিকভাবে যাত্রা শুরু হয় কোম্পানিটির।

কোম্পানিটিকে বাজারে আনতে ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং সিএপিএম অ্যাডভাইজরি লিমিটেড।

জেডএস

 

শেয়ারবাজার: আরও পড়ুন

আরও