ডিভিডেন্ড পাঠিয়েছে পুঁজিবাজারের ৬ কোম্পানি

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০১৯ | ৪ আষাঢ় ১৪২৬

ডিভিডেন্ড পাঠিয়েছে পুঁজিবাজারের ৬ কোম্পানি

পরিবর্তন ডেস্ক ৬:০৬ অপরাহ্ণ, জুন ০১, ২০১৯

ডিভিডেন্ড পাঠিয়েছে পুঁজিবাজারের ৬ কোম্পানি

বছরান্তে ঘোষিত ডিভিডেন্ড বিনিয়োগকারীদের বেনিফিশিয়ারী ওনার্স (বিও) ও ব্যাংক হিসাবে পাঠিয়েছে পুঁজিবাজারের তালিকাভুক্ত ৬ কোম্পানি। বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) বিনিয়োগকারীদের অনুমোদিত সাপেক্ষে এ ডিভিডেন্ড পাঠিয়েছে কোম্পানিগুলো। সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেড (সিডিবিএল) ও ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

কোম্পানিগুলো হলো:  ঢাকা ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, পূবালী ব্যাংক, ব্রিটিশ আমেরিকান টোবাকো, ব্যাংক এশিয়া ও গ্রামীণফোন  লিমিটেড।

সূত্র মতে, ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৮ সমাপ্ত অর্থবছরে ঢাকা ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক,পূবালী ব্যাংক ও ব্রিটিশ আমেরিকান টোবাকো’র ঘোষিত বোনাস শেয়ার সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডের (সিডিবিএল) মাধ্যমে শেয়ারহোল্ডারদের নিজ নিজ বিও হিসাবে জমা হয়েছে।

ঢাকা ব্যাংক

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৮ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ৫ শতাংশ ক্যাশ ও ৫ শতাংশ স্টকসহ মোট ১০ শতাংশ ডিভিডেন্ড দেয়ার সুপারিশ করেছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৭৩ টাকা।

ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৮ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দেয়ার সুপারিশ করেছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.০৩ টাকা।

এছাড়া ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরে ঘোষিত ক্যাশ ডিভিডেন্ড বিনিয়োগকারীদের ব্যাংক হিসাবে পাঠিয়েছে গ্রামীনফোন এবং ব্যাংক এশিয়া।

পূবালী ব্যাংক

৩১ ডিসেম্বর, ২০১৮ সমাপ্ত অর্থবছরে এ কোম্পানির ঘোষিত বোনাস শেয়ার সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডের (সিডিবিএল) মাধ্যমে ২৮ মে, ২০১৯ শেয়ারহোল্ডারদের নিজ নিজ বিও হিসাবে জমা হয়েছে।

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৮ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ১০ শতাংশ ক্যাংশ ও ৩ শতাংশ স্টকসহ মোট ১৩ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে।

ব্রিটিশ আমেরিকান টোবাকো

কোম্পানিটির ঘোষিত বোনাস শেয়ার গত ২৬ মে শেয়ারহোল্ডারদের বিও হিসাবে পাঠানো হয়েছে। এর আগে কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে শেয়ারহোল্ডারদের ৫০০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ডের পাশাপাশি ২০০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। যা কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) শেয়ারহোল্ডারদের সম্মতিক্রমে অনুমোদন করা হয়।

সমাপ্ত বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৬৬.৮৭ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ১৩০.৫০ টাকা।

গ্রামীনফোন

৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ১৫৫ শতাংশ চূড়ান্ত ক্যাশ ও ১২৫ শতাংশ অন্তবতীকালীনসহ মোট ২৮০ শতাংশ ডিভিডেন্ড দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। সমাপ্ত অর্থবছরে এ কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ২৬.০৪ টাকা। যা আগের বছরে ছিল ২০.৩১ টাকা।

ব্যাংক এশিয়া

৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ সমাপ্ত অর্থবছরে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৫ শতাংশ ক্যাশ ও ৫ শতাংশ স্টকসহ মোট সাড়ে ১০ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। সমাপ্ত বছরে ব্যাংকটির শেয়ার প্রতি সন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ২.০১ টাকা এবং এককভাবে ইপিএস হয়েছে ২.০৪ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে সমন্বিত ইপিএস ছিল ১.৯০ টাকা এবং এককভাবে ছিল ১.৮৪ টাকা।

একই সময়ে ব্যাংকের শেয়ার প্রতি সমন্বিত সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২১.০৮ টাকা। শেয়ার প্রতি সমন্বিত নগদ কার্যকর অর্থ প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ৩.১৫ টাকা।

জেডএস/