মুনাফা কমেছে রানার অটোমোবাইলসের

ঢাকা, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

মুনাফা কমেছে রানার অটোমোবাইলসের

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৭:২৮ অপরাহ্ণ, মে ২০, ২০১৯

মুনাফা কমেছে রানার অটোমোবাইলসের

প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা রানার অটোমোবাইলস তৃতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, তৃতীয় প্রান্তিক শেষে কোম্পানিটির মুনাফা ও ইপিএস আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কমেছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিক (জানুয়ারি-মার্চ’১৯) শেষে কোম্পানিটির কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ৭ কোটি ২১ লাখ ৯০ হাজার টাকা ও শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৭৭ টাকা।

আগের বছরের একই সময় কোম্পানিটির কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছিল ১১ কোটি ৭ লাখ ৭০ হাজার টাকা ও শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছিল ১.১৮ টাকা।

অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির কর পরবর্তী মুনাফা কমেছে ৩ কোটি ৮৫ লাখ ৮০ হাজার টাকা ও ইপিএস কমেছে ০.৪১ টাকা।

এদিকে, ৩১ মার্চ ২০১৯ শেষে আইপিও পরবর্তী বেসিক ইপিএস হয়েছে ০.৬৭ টাকা।

তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই’১৮ থেকে মার্চ’১৯) নয় মাসে কোম্পানিটির কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ৩৩ কোটি ৭৫ লাখ ১০ হাজার টাকা ও ইপিএস হয়েছে ৩.৫৮ টাকা।

আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ৩৪ কোটি ৯৮ লাখ ২০ হাজার টাকা ও ইপিএস হয়েছে ৩.৭১ টাকা।

অর্থাৎ তৃতীয় প্রান্তিক (জুলাই ’১৮-মার্চ ’১৯) শেষে কোম্পানিটির কর পরবর্তী মুনাফা কমেছে ১ কোটি ২৩ লাখ ১০ হাজার টাকা ও ইপিএস কমেছে ০.১৩ টাকা।

যদিও আইপিও পরবর্তী সময়ে বিগত ৯ মাসে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ৩.১২ টাকা।

আইপিও পূর্বর্তী হিসাব অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৬৬.৪২ টাকা।
যদিও আইপিও পরবর্তী হিসাব অনুযায়ী ৩১ মার্চ ২০১৯ শেষে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য দাঁড়িয়েছে ৬৬.৯৫ টাকা।

ডিএসই’র ওয়েবসাইট সূত্রে জানা যায়, প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) সম্পন্ন করা রানার অটোমোবাইলসের আগামী ২১ মে দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জের প্রকৌশল খাতে লেনদেন শুরু করবে। ‘এন’ ক্যাটাগরির আওতায় লেনদেন শুরুর অপেক্ষায় থাকা কোম্পানিটির ট্রেডিং কোড ‘RUNNERAUTO’ ও ডিএসই কোম্পানি কোড-১৩২৪৬।

এর আগে বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে গত ৩১ জানুয়ারি থেকে ১০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত রানার অটোমোবাইলসের আইপিও আবেদন চলে।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৬৬৩তম কমিশন সভায় কোম্পানিকে আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়।

রানার ১ কোটি ৩৯ লাখ ৩০ হাজার ৩৪৮টি শেয়ার ছেড়ে পুঁজিবাজার থেকে প্রায় ১০০ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে। এর মধ্যে ৮৩ লাখ ৩৩ হাজার ৩৩৩টি শেয়ার ৭৫টাকা করে যোগ্য বিনিয়োগকারীদের কাছে ইস্যু করা হবে।

অবশিষ্ট ৫৫ লাখ ৯৭ হাজার ১৫টি শেয়ার ৬৭ টাকা করে (৭৫ টাকা থেকে ১০ শতাংশ কমে) সাধারণ বিনিয়োগকারীদের নিকট ইস্যু করা হবে।

এর আগে গত বছরের ১০ জুলাই কমিশনের ৬৫০তম সভায় রানার অটোমোবাইলকে প্রাথমিক গণ প্রস্তাব (আইপিও) এর মাধ্যমে বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে শেয়ার বিক্রি বা বিডিংয়ের অনুমোদন দেয় বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

এরপর গত বছরের ১০ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫টা থেকে ১৩ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫টা পর্যন্ত একটানা বিডিং প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়।

উল্লেখ্য, যোগ্য বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণে বিডিংয়ে কোম্পানিটির শেয়ারের কাট অফ প্রাইস ৭৫ টাকা নির্ধারণ হয়েছিল। আইপিও’র টাকা দিয়ে কোম্পানিটি গবেষণা ও উন্নয়ন, যন্ত্রপাতি ক্রয়, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ ও আইপিও খরচে ব্যয় করবে।

গত পাঁচ বছরে ভারিত গড় হরে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.৩১ টাকা। ৩০ জুন ২০১৭ সমাপ্ত বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৫৫.৭০ টাকা।

কোম্পানিটির ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছে আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্টস লি.।

জেডএস/এইচআর

 

শেয়ারবাজার: আরও পড়ুন

আরও