লোকসানে থেকেও বিনিয়োগকারীদের ডিভিডেন্ড দেবে এটলাস বাংলাদেশ

ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

লোকসানে থেকেও বিনিয়োগকারীদের ডিভিডেন্ড দেবে এটলাস বাংলাদেশ

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:৫২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৬, ২০১৮

লোকসানে থেকেও বিনিয়োগকারীদের ডিভিডেন্ড দেবে এটলাস বাংলাদেশ

টানা তৃতীয় বছরে লোকসান গুণলেও ইয়ার ইন্ডে বিনিয়োগকারীদের জন্য ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে প্রকৌশল খাতের তালিকাভুক্ত কোম্পানি এটলাস বাংলাদেশ।

৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, প্রতিযোগিতার বাজারে তুলনামূলক পুরাতন প্রযুক্তি ও বিপণনের পুরাতন কৌশল অবলম্বন করায় ২০১৬ সালে লোকসানের ফাঁদে পড়ে প্রকৌশল খাতের রাষ্ট্রায়্ত্ব প্রতিষ্ঠান এটলাস বাংলাদেশ। ২০১৭ সালে লোকসানের পরিমাণ ৭ কোটি টাকা অতিক্রম করেছে। তবে ৩০ জুন ২০১৮ শেষে কোম্পানিটির লোকসানের হার কমেছে।

তথ্য সূত্র বলছে, ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ১.২৩ টাকা। যা আগের বছর একই সময় ছিল ২.৩৯ টাকা। অর্থাৎ আগের বছরের তুলনায় কোম্পানিটির লোকসানের পরিমাণ কমেছে ১.১৬ টাকা।

এসময় কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৪৮ টাকা ও শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ১.৬১ টাকা।

ঘোষিত ডিভিডেন্ড অনুমোদনে আগামী ২২ ডিসেম্বর কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভার (এজিএম) সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। ওইদিন বেলা ১১টায় কোম্পানির ফ্যাক্টরি প্রাঙ্গণ, গাজীপুরে এজিএম অনুষ্ঠিত হবে। এ সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট আগামী ২৬ নভেম্বর।

এদিকে, চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকেও (জুলাই-সেপ্টেম্বর’১৮) লোকসান কমেছে কোম্পানিটির। মূলত টিভিএস অটো বাংলাদেশের সাথে মোটরসাইকেল সংযোজন ও বাজারজাতকরণের চুক্তি ও কার্যক্রম শুরু হওয়া কোম্পানিটির বিক্রয় বেড়েছে।

চলতি বছরে প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.২০ টাকা। যা আগের বছরের একই সময় ছিল ০.৬৬ টাকা। অর্থাৎ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় শেয়ার প্রতি লোকসান কমেছে ০.৪৬ টাকা।

৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ শেষে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৪৮ টাকা।

ডিএসই’র ওয়েবসাইট সূত্রে জানা যায়, ১০০ কোটি টাকা অনুমোধিত মূলধনধারী এটলাস বাংলাদেশের পরিশোধিত মূলধন ৩০ কোটি ১১ লাখ ৬০ হাজার টাকা। কোম্পানিটির পুঞ্জিভূত আয় ও সঞ্চিতি ৪০৫ কোটি ২৮ লাখ টাকা।

১৯৮৮ সালে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটি বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটাগরির আওতাভুক্ত। কোম্পানিটির সর্বমোট শেয়ারের ১.১৩ শতাংশ উদ্যোক্তা পরিচালকদের নিকট, ৫১ শতাংশ সরকারের নিকট, ২০.৩৮ শতাংশ প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের নিকট ও ২৭.৪৯ শতাংশ সাধারণ বিনিয়োগকারীদের নিকট রয়েছে।

উল্লেখ্য, ৩০ জুন ২০১৭ সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটি ২ শতাংশ ক্যাশ ও ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছিল।

জেডএস/এসবি