ডিএসই’র গড় লেনদেন ৭৬৪ কোটি টাকা

ঢাকা, রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫

ডিএসই’র গড় লেনদেন ৭৬৪ কোটি টাকা

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৬:০৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৬, ২০১৮

ডিএসই’র গড় লেনদেন ৭৬৪ কোটি টাকা

নতুন তালিকাভুক্ত কোম্পানি বসুন্ধরা পেপার মিলসের উপর ভিত্তি করে সপ্তাহের ব্যবধানে (০২-০৫ জুলাই) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) গড় লেনদেন বেড়েছে প্রায় ৭.৮৭ শতাংশ। সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসই’র গড় লেনদেন ৭৬৪ কোটি টাকা অতিক্রম করেছে। যদিও সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসই’র সার্বিক লেনদেন কমেছে ১৩.৭০ শতাংশ। মূলত, গত সপ্তাহে জুন ক্লোজিংয়ের কারণে ১ কার্যদিবসে লেনদেন কম হওয়ায় ডিএসই’র সার্বিক লেনদেন কমেছে। ডিএসই’র সপ্তাহিক বাজার পর্যালোচনায় এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩ হাজার ৫৬ কোটি ৭০ লাখ ২০ হাজার ৭১ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর আগের সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৩ হাজার ৫৪১ কোটি ৯৯ লাখ ৮ হাজার ৭১৬ টাকা। অর্থাৎ সদ্য সমাপ্ত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ১৩.৭০ শতাংশ।

এদিকে, আগের সপ্তাহে ডিএসইতে দৈনিক গড় লেনদেন হয়েছিল ৭০৮ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসই’র গড় লেনদেন হয়েছে ৭৬৪ কোটি ১৭ লাখ টাকা।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৪৪টি কোম্পানি ও ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৬৩টির, দর কমেছে ১৬২টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ১৮টি প্রতিষ্ঠানের। এর আগের সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৪৩টি কোম্পানি ও ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছিল ১২৬ টির ও দর কমেছিল ১৯৬টির।

সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসই’র সার্বিক মূল্য সূচক কমেছে ৪৩.১৮ পয়েন্ট। সপ্তাহের শুরুতে ডিএসই’র সার্বিক মূল্য সূচক ৫৪০৫.৪৬ পয়েন্টে স্থিতিশীল ছিল। কিন্তু সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ডিএসই’র সার্বিক মূল্য সূচক ৫৩৬২.২৮ পয়েন্টে স্থিতি পেয়েছে।

এসময় শরীয়াহ্ ভিত্তিক কোম্পানিগুলোর মূল্য সূচক ডিএসই-এস কমেছে ০.২০ পয়েন্ট ও ডিএস-৩০ সূচক কমেছে ৩৩.৪৯ পয়েন্ট।

সপ্তাহ শেষে ডিএসইতে টার্নওভার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে বসুন্ধরা পেপার মিলস। কোম্পানিটির ২২৫ কোটি ৯৫ লাখ ৯ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া সর্বমোট লেনদেনের ৮.৩৭ শতাংশ।

এদিকে, টার্নওভার তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল আরএসআরএম স্টিল, গত সপ্তাহে কোম্পানিটির ৯৭ কোটি ৫৮ লাখ ৫৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। গত সপ্তাহে কোম্পানিটির শেয়ার দর ৬.৩০ শতাংশ কমেছে। টার্নওভার তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে ছিল ইউনাইটেড পাওয়ার, কোম্পানিটির ৯৫ কোটি ৮০ লাখ ৩০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

টার্নওভার তালিকায় থাকা অন্যান্য কোম্পানিগুলো হলো— মুন্নু সিরামিক, আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ, প্রাইম টেক্সটাইল, বাংলাদেশ এক্সপোর্ট ইমপোর্ট কোম্পানি, ফরচুন সুজ, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল ও লিগ্যাসি ফুটওয়্যার লিমিটেড।

জেডএস/এসবি