এশিয়াডে বাংলাদেশের আরেকটি ব্যর্থতার দিন

ঢাকা, রবিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৮ | ৫ কার্তিক ১৪২৫

এশিয়াডে বাংলাদেশের আরেকটি ব্যর্থতার দিন

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৯:৩৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৫, ২০১৮

এশিয়াডে বাংলাদেশের আরেকটি ব্যর্থতার দিন

শূন্য হাতেই কি এবার এশিয়ান গেমস শেষ করতে হচ্ছে বাংলাদেশকে? গেমস শেষ হতে এখনো বাকী দিন সাতেক। তাই নিশ্চিত ভাবে বলার উপায় নেই কিছু। কিন্তু বাংলাদেশের প্রত্যাশার ইভেন্টেগুলোতে হতাশা লিখা হয়ে গেছে ইতিমধ্যে। আশার সমাধিও রচিত হয়েছে তাতে।

নারী কাবাডি থেকে গ্রুপ পর্বেই বিদায় নিয়েছে বাংলাদেশ। একমাত্র যেটিতেই ছিল পদকের বড় আশা। বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন (বিওএ) শ্যুটিং ও আর্চারিতে ভালো কিছুর স্বপ্ন দেখলেও সেটিও এখন আর অবশিষ্ট নেই। ব্যর্থতার ধারাবাহিকতায় তাই এবার পদকহীনভাবেই বাংলাদেশের এশিয়াড শেষ হওয়ার জোগাড়। যদিও ১৯৮৬ সাল থেকে প্রতিটি এশিয়াডেই কোনো না কোনো পদক জিতেছে বাংলাদেশ। ১ সোনা এবং ৫টি করে রুপা ও ব্রোঞ্জ মিলে এশিয়াডে মোট ১২টি পদক বাংলাদেশের।

কিন্তু এবার প্রতিদিনই মিলছে হতাশার চিত্র। বাংলাদেশের ক্রীড়াবিদবে ব্যর্থতা ছিল শনিবারও। এদিন অ্যাথলেটিকস, আর্চারি, গলফে হতাশ করেছেন বাংলাদেশি ক্রীড়াবিদরা।

জিবিকে স্টেডিয়ামে অ্যাথলেটিক্সে ছেলেদের ৪০০ মিটারে অংশ নিয়েছিলেন বাংলাদেশের আবু তালেব। ৫০.৯৭ সেকেন্ড ২৮ জনের মধ্যে ২৭তম হয়েছেন তিনি। অন্যদিকে মেয়েদের বিভাগে ট্র্যাক অ্যান্ডে ফিল্ডে নামেন সুমি আক্তার। ৪০০ মিটারে ৫৭.১৬ সেকেন্ড সময় নিয়ে ১৮ জনের মধ্যে ১৪তম হয়েছেন তিনি। তবে এদিন ক্যারিয়ার সেরা টাইমিং করেছেন এই অ্যাথলেট।

আর্চারিতে দুটি ইভেন্টে অংশ নেয় বাংলাদেশ। ছেলেদের ও মেয়েদের উভয় বিভগে দলগত রিকার্ভ ইভেন্টে অংশ নিয়ে দুটিতেই হতাশ করেছেন আর্চাররা। সেরা আটের লড়াইয়ে হেরেছেন তারা। মেয়েদের বিভাগে জাপানের কাছে ৬-২ সেটে হেরেছেন বাংলাদেশের নাসরিন আক্তার, ইতি খাতুন ও বিউটি রায়কে নিয়ে গড়া দল। ছেলেদের দলগত রিকার্ভে মঙ্গোলিয়ার কাছে একই ব্যবধানে হেরেছেন রোমান সানা, এনামুল হক ও ইব্রাহিম শেখকে নিয়ে গড়া দল।

গলফে মেয়েদের বিভাগে তৃতীয় রাউন্ড শেষে পারের চেয়ে ২৪ শট বেশি খেলে ৩৩তম স্থানে রয়েছেন সোনিয়া আক্তার। পারের চেয়ে ৩৭ শট বেশি খেলে লিজা আক্তার রয়েছেন ৩৫তম স্থানে। মেয়েদের দলগততে ১৩তম স্থানে বাংলাদেশ।

ছেলেদের দলগততে তিন রাউন্ড শেষে ১৬তম স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। ব্যক্তিগত ইভেন্টে সাহাব উদ্দিন ও শফিক পারের চেয়ে সমান ২০ শট বেশি খেলে যৌথভাবে রয়েছেন ৫৭তম স্থানে। মোহাম্মদ ফরহাদ পারের চেয়ে ২১ শট বেশি খেলে যৌথভাবে ৬০তম এবং সম্রাট শিকদার ২২ শট বেশি খেলে রয়েছেন ৬২তম স্থানে।

টিএআর