নিজেদের ছাড়িয়ে যাওয়া হলো না আর্চারদের

ঢাকা, শনিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৮ | ২ ভাদ্র ১৪২৫

নিজেদের ছাড়িয়ে যাওয়া হলো না আর্চারদের

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:১২ অপরাহ্ণ, মে ০৯, ২০১৮

print
নিজেদের ছাড়িয়ে যাওয়া হলো না আর্চারদের

আগের আসরে ৬টি সোনার পদক জয় করে শ্রেষ্ঠত্ব দেখিয়েছিল বাংলাদেশ। এবার ১০ ইভেন্টের ৯টিতেই ফাইনালে উঠে আগের আসরকে ছাড়িয়ে যাওয়ার স্বপ্ন ছিল লাল-সবুজের দেশের। কিন্তু দ্বিতীয় আইএসএসএফ ইন্টারন্যাশনাল সলিডারিটি আর্চারি চ্যাম্পিয়নশিপে সেই স্বপ্ন পূরণ হয়নি। বরং ঢাকায় আগের আসরের থেকে একটি সোনা কম নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে বাংলাদেশকে। তবে পাঁচটি সোনা, সঙ্গে পাঁচটি রূপা ও একটি ব্রোঞ্জ জিতে শ্রেষ্ঠত্ব থাকছে বাংলাদেশেরই।

সকালে প্রথম পর্বে কম্পাউন্ড বিভাগের পাঁচ ইভেন্টের চারটিতেই সোনা জয় করে বাংলাদেশ। কম্পাউন্ড মিশ্র দলগততে সোনা হাতছাড়া হওয়া ছাড়া বাকি চার ইভেন্টেই আসে সোনা। যেখানে মেয়েদের কম্পাউন্ড ব্যক্তিগত ইভেন্টে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইরাকের ফাতিমা আল মাসহাদানিকে হারিয়ে সোনা জয় করেন বাংলাদেশের রোকসানা। যাকে হারিয়েছেন সেই ফাতিমা ২০১৫ সালে ওয়ার্ল্ড আর্চারির ইয়ুথ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন।

কম্পাউন্ড পুরুষ এককে অসীম কুমার সোনা জয় করেন। এছাড়া কম্পাউন্ড পুরুষ ও নারী দুই দলগত ইভেন্টেই সোনা জয় করে বাংলাদেশ।

সকালে কম্পাউন্ডের এমন পারফরম্যান্সের পর নিজেদের ছাড়িয়ে যাওয়ার মঞ্চটা তৈরি ছিল বাংলাদেশের জন্য। কিন্তু দুপুরের পর রিকার্ভ বিভাগে একে একে ভরাডুবি হলো বাংলাদেশের। মেয়েদের রিকার্ভ ব্যক্তিগত ইভেন্ট বাদে বাকি সবকটিতেই ফাইনালে ওঠে বাংলাদেশ। কিন্তু সোনা এলো কেবল পুরুষ দলগততে। যেখানে নেপালকে হারিয়ে সোনা জেতেন বাংলাদেশের রুমান সানা, তামিমুল ইসলাম ও ইব্রাহীম শেখ রেজওয়ান।

কিন্তু তার আগে মেয়েদের দলগততে সোনা হাতছাড়া হয়। আজারবাইজানের মেয়েদের কাছে হেরে যান নাসরিন আক্তার, বিউটি রায় ও রাদিয়া আক্তার শাপলা। রিকার্ভ মিশ্র দলগত ইভেন্টে তুরস্কের কাছে হেরে গেছে রুমান সানা ও নাসরিন আক্তার জুটি।

মেয়েদের এককে আগের দিন ফাইনালেই ওঠা হয়নি বাংলাদেশের। পুরুষ একক ইভেন্ট দিয়ে শেষ হয় আর্চারি চ্যাম্পিয়নশিপ। এই ইভেন্ট জিতলে অন্তত আগের আসরের মতো ছয়টি সোনা নিশ্চিত হতো। কিন্তু সৌদি আরবের আর্চার বিনালি আবদালেলাহের কাছে হেরে যান রোমান সানা।

তাতে পাঁচ সোনার শ্রেষ্ঠত্বের মাঝেও মিশে থাকলো হাহাকার। আর্চারিতে রিকার্ভই মূলত অলিম্পিক ইভেন্ট। আর সেই ইভেন্টে বাংলাদেশে রয়েছে বিদেশি কোচও। জার্মান কোচ মার্টিন ফ্রেডরিক আর্চারদের নিয়ে কাজ করছেন মাস তিনেক হলো। তার আগে এক যুগেরও বেশি সময় ছিলেন ভারতীয় কোচ নিশিত দাশ। অথচ কম্পাউন্ডে বিদেশি কোচ না থাকলেও ভালো ফল এসেছে। ছেলেদের ব্যক্তিগততে যেমন আগে কখনো এতো সাফল্য আসেনি। সেটি নিয়ে তৃপ্তি থাকছে। কিন্তু ১৬ জাতির এই ইন্টারন্যাশনাল সলিডারিটি আর্চারির আসরে যে তেমন বড় আর্চারদের মেলা বসেনি। তাই রিকার্ভের ব্যর্থতা নিয়ে প্র্রশ্ন থাকছে।

টিএআর/এসএম/ক্যাট

 
.


আলোচিত সংবাদ