পদকের আশা নেই, সেরাটা দেওয়ার প্রত্যাশা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ জুলাই ২০১৮ | ৩ শ্রাবণ ১৪২৫

পদকের আশা নেই, সেরাটা দেওয়ার প্রত্যাশা

তোফায়েল আহমেদ ৫:২২ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩১, ২০১৮

print
পদকের আশা নেই, সেরাটা দেওয়ার প্রত্যাশা

কমনওয়েলথ গেমসের ২১তম আসর দুয়ারে। ৪ এপ্রিল অস্ট্রেলিয়ার গোল্ড কোষ্টে পর্দা উঠবে বিশ্বের অন্যতম বড় এই ক্রীড়াযজ্ঞের। বাংলাদেশ ৬ টি ডিসিপ্লিনে অংশ নিচ্ছে এবার। যাদের মধ্যে শ্যুটিং দল গেমস শুরুর বেশ আগেই অস্ট্রেলিয়ায় পৌঁছেছে। শনিবার রাতে গেমসে অংশ নিতে ঢাকা ছাড়তে যাচ্ছেন আরো চার ডিসিপ্লিনের অ্যাথলেটরা। সাঁতার, অ্যাথলেটিক্স, ভারোত্তোলন ও বক্সিং দল ঢাকা ছাড়বে রাতে।

এমনিতে যে ছয় ডিসিপ্লিনে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশ, এর মধ্যে শ্যুটিংকে ঘিরেই প্রত্যাশা সবার। অতীতেও এই গেমসে শ্যুটিং থেকে এসেছে স্বর্ণ পদক। এবারও তাই শ্যুটিং দলকে নিয়ে থাকছে প্রত্যাশা। গেল ২৪ মার্চ রাতে কমনওয়েলথ গেমসে অংশ নিতে অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়ে ১৮ সদস্যের শ্যুটিং দল। যেখানে রয়েছেন মোট ১২ জন শ্যুটার, ৬ জন কর্মকতা।

শনিবার রাত সাড়ে এগারোটায় অস্ট্রেলিয়ার বিমানে উঠবে সাঁতার, অ্যাথলেটিক্স, বক্সিং ও ভারোত্তোলন দল। অ্যাথলেটিক্সে অংশ নিচ্ছেন মেজবাহ আহমেদ ও শিরিন আক্তার। একজন কোচসহ অস্ট্রেলিয়াগামী দলটা তিন সদস্যের। সাঁতার দলে তিনজন সাঁতারুর সঙ্গে একজন কর্মকর্তা। তিন সাঁতারু হলেন আরিফুল ইসলাম, মাহমুদুন নবী নাহিদ ও নাজমা খাতুন। বক্সিং দলে দুই বক্সার রবিন মিয়া ও মোহাম্মদ আল-আমিনের সঙ্গে যাচ্ছেন একজন কর্মকর্তা। ভারোত্তোলন দলটা ছয় সদস্যের। কোচ বিদ্যুৎ কুমার রায়ের সঙ্গে খেলোয়াড় হিসেবে রয়েছেন মাবিয়া আক্তার সীমান্ত, জহুরা খাতুন, ফুলপতি চাকমা, ফাহিমা আক্তার ময়না ও শিমুল কান্তি সিং। তিন সদস্যের কুস্তি দলটা যাবে সবার শেষে। ৯ এপ্রিল ঢাকা ছাড়বে তারা।

অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়ার আগে পরিবর্তন ডটকমকে নিজেদের লক্ষ্যের কথা জানান সাঁতার, অ্যাথলেটিকস, ভারোত্তোলন, বক্সিং এই চার ইভেন্টের প্রতিযোগীরা। বাস্তবতার জমিতে পা রেখেই কারো কণ্ঠে পদকের প্রতিশ্রুতি থাকছে না। তবে গোল্ড কোস্টে নিজেদের সেরা পারফরম্যান্সটাই দেওয়ার আশা তাদের।

কমনওয়েলথ গেমসের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে সামনে এসএ গেমসে সোনার লড়াইয়ের জন্য যেমন নিজেদের শাণিত করতে চান দেশসেরা দুই অ্যাথলেট মেজবাহ আহমেদ ও শিরিন আক্তার। দুজনেরই এটি দ্বিতীয় কমনওয়েলথ গেসম। মেজবাহ পরিবর্তনকে বলেন, ‘যে প্র্যাকটিস করেছি তাতে টাইমিং ভালো হচ্ছে। যাওয়ার আগে শেষ যে টাইমিং ছিল সেটাও ভালো হয়েছে। কোচের আইডিয়া ও আমার আইডিয়া মিলিয়ে ভালো কিছুই হবে। আগের টাইমিংয়ের চেয়ে ভালো বা সমান হবে, খারাপ হবে না ইনশা আল্লাহ।’

ছয়বারের জাতীয় চ্যাম্পিয়ন শিরিন বলেন, ‘২০১৪ কমনওয়েলথ গেমসেও আমি খেলেছি। ওখানে আমার যে টাইমিং ছিল ওটার থেকে আমার এখনকার টাইমিং ভালো। আমার সেরা টাইমিং ১১.৯৯। আমি চেষ্টা করবো আমার সেরা টাইমিংটাই করার। যদি সেটা সম্ভব না হয় তবে সর্বশেষ জাতীয় অ্যাথলেটিকসসে যে টাইমিং করেছি তার চেয়ে ভালো কিছু করতে চাই।’

ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত বলছেন এখানকার পারফরম্যান্স দিয়ে র‌্যাঙ্কিংয়ে নিজের উন্নতি করতে চান তিনি। সর্বশেষ এসএ গেমসে সোনা জয়ী এই তারকা বলেন ‘পদকের কথা জিজ্ঞেস করলে বলবো আমাদের কোনোরকম আশা নেই। আমরা ওদের থেকে অনেক পিছিয়ে। তবে সাউথ এশিয়ান যারা অংশ নিচ্ছে তাদের থেকে অবশ্যই ভালো কিছু করবো।’

দুই বক্সার রবিন মিয়া ও মোহাম্মদ আল-আমিন বলছেন রিংয়ে নামার সময় পদকের স্বপ্নই নাকি চোখে থাকবে তাদের। অঘটন ঘটলে কিছু একটা হতেও পারে বলে মন্তব্য তাদের। বক্সার আল-আমিন বলেন, ‘সবার প্রত্যাশা তো মেডেলের জন্য। বক্সিংয়ে যে কোনো অঘটন ঘটতেই পারে। আমরা আমাদের নিজেদের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করবো। দেখা যাক কি হয়।’

সাঁতারু আরিফুল ইসলামের কণ্ঠে আগের বার অংশ নেওয়া মাহফিজুর রহমানের সাগরের থেকে ভালো কিছু করার আত্মবিশ্বাস। যুব গেমসে ৫টি সোনা জেতা আরিফুল বলেন, ‘নিজের সেরা দেওয়ার ও নিজের সেরা টাইমিংটাই করার চেষ্টা করবো। আমার সেরাটা দিতে পারলে সেরা ষোলর মধ্যে আসতে পারবে বলে বিশ্বাস আমার।’ তবে কানের ইনফেকশনের কারণে গেল দুই দিন প্রস্তুতি নিতে পারেননি আরিফ। ডাক্তারে শরণাপন্ন হয়েছেন। অস্টেলিয়া গিয়েও ডাক্তার দেখাবেন। এছাড়া একমাস কোচ নিয়েও ছিল সমস্যা। কোরিয়ান কোচ পার্ক তেগুন ছুটিতে গিয়ে এখনো ফেরেননি। সাঁতার দলের সঙ্গে কোচকে না পাঠিয়ে অবশ্য পাঠানো হচ্ছে এক জন কর্মকর্তাকে।

টিএআর/ক্যাট

 
.



আলোচিত সংবাদ