রোহিঙ্গা হত্যাকাণ্ডে সেনাবাহিনীর দায় স্বীকার ইতিবাচক পদক্ষেপ: সু চি

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ জুলাই ২০১৮ | ২ শ্রাবণ ১৪২৫

রোহিঙ্গা হত্যাকাণ্ডে সেনাবাহিনীর দায় স্বীকার ইতিবাচক পদক্ষেপ: সু চি

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:১৭ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০১৮

print
রোহিঙ্গা হত্যাকাণ্ডে সেনাবাহিনীর দায় স্বীকার ইতিবাচক পদক্ষেপ: সু চি

রোহিঙ্গা নির্যাতন ও হত্যার ঘটনার সাথে সেনাবাহিনীর জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি বলেছেন, এর জন্য তাঁর দেশের সেনাবাহিনী দায় নিচ্ছে। এটা একটা ইতিবাচক পদক্ষেপ। রয়টার্সের সংবাদ।

মিয়ানমার সফররত জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তারো কোনোর সাথে গতকাল শুক্রবার এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন সু চি। মিয়ানমারের প্রশাসনিক রাজধানী নেপিদোতে দুই দেশের মধ্যে এক বৈঠক শেষে এ সংবাদ সম্মেলন হয়।

রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন নিপীড়নের অভিযোগ অস্বীকার করে আসলেও অবশেষে রোহিঙ্গা হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। গত বুধবার এক ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে দেশটি সেনাপ্রধানের কার্যালয় থেকে বলা হয়, গত বছরের সেপ্টেম্বরে ১০ জন রোহিঙ্গাকে হত্যার সঙ্গে সেনাবাহিনী জড়িত ছিল। এ ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছেও বলে জানানো হয় ফেসবুক পোস্টটিতে।

এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে সু চি জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, সেনাবাহিনী এ ঘটনার তদন্ত করছে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবে। এটি আমাদের জন্য নতুন একটি পদক্ষেপ। দেশের আইন শাসনের জন্য এ দায় নেয়াটা ইতিবাচক।

তবে স্টেট কাউন্সিলর সু চির সঙ্গে বৈঠকে রাখাইনের রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তারো কোনো।  গতকাল নেপিডোয় মিয়ানমারের  সময় এই উদ্বেগের কথা জানান। সেইসাথে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের জন্য ৩০ কোটি ডলার সহায়তা দেয়ার ঘোষণা দেন তিনি। এ ছাড়াও প্রত্যাবাসনের পর রোহিঙ্গাদের পুনর্বাসনের জন্য কফি আনান কমিশনের সুপারিশগুলো অনুসরণ ও বাস্তবায়ন করার প্রতি জোর দেন তারো কোনো।  

আরজি/

 
.



আলোচিত সংবাদ