ধর্মগুরু নিত্যানন্দের আশ্রমে আটক মেয়েদের উদ্ধারে মামলা

ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ধর্মগুরু নিত্যানন্দের আশ্রমে আটক মেয়েদের উদ্ধারে মামলা

পরিবর্তন ডেস্ক ৫:২৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০১৯

ধর্মগুরু নিত্যানন্দের আশ্রমে আটক মেয়েদের উদ্ধারে মামলা

স্বঘোষিত ধর্মগুরু স্বামী নিত্যানন্দ। তার বিরুদ্ধে আগেও ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে।

স্বঘোষিত ধর্মগুরু স্বামী নিত্যানন্দের আশ্রমে তাদের দুই মেয়েকে আটকে রাখার অভিযোগ করলেন এক দম্পতি। সোমবার নিত্যানন্দের বিরুদ্ধে গুজরাট হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন জনার্দন শর্মা ও তাঁর স্ত্রী। বেআইনি ভাবে জোর করে দুই কিশোরী কন্যাকে নিত্যানন্দের আশ্রমে আটকে রাখা হয়েছে বলে তাদের অভিযোগ।

ভারতের এনডিটিভির খবরে বলা হয়, ২০১৩ সালে স্বামী নিত্যানন্দ পরিচালিত বেঙ্গালুরুর একটি শিক্ষামূলক প্রতিষ্ঠানে নিজের চার মেয়েকে ভর্তি করান অমদাবাদের বাসিন্দা জনার্দন শর্মা। সম্প্রতি তাঁরা জানতে পারেন যে চার মেয়েকেই নিত্যানন্দ ধ্যানপীঠমের অন্য একটি শাখায় সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

অমদাবাদের দিল্লি পাবলিক স্কুলের ক্যাম্পাসেই এই আশ্রমটি রয়েছে। সেখানে গিয়ে মেয়েদের সঙ্গে দেখা করতে চাইলে জনার্দন ও তাঁর স্ত্রীকে তাড়িয়ে দেওয়া হয় বলে তারা অভিযোগ। করেন।

এরপর পুলিশের সাহায্য নিয়ে তারা তাদের দুই নাবালিকা কন্যাকে প্রতিষ্ঠান থেকে উদ্ধারে সক্ষম হন। কিন্তু দুই বড় মেয়ে লোপামুদ্রা (২১) ও নন্দিতা (১৮) এখনও সেখানেই আছে বলে পিটিশনে জানানো হয়েছে।

ওই দম্পতির অভিযোগ, তাদের দুই ছোট মেয়েকে বেআইনিভাবে আটকে রাখা হয়েছিল দুসপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে। তাদের ঘুমাতেও দেয়া হয়নি।

তারা আবেদন জানিয়েছেন, তাদের আটক দুই কন্যাকে উদ্ধার করার পাশাপাশি পুলিশ ওখানে আটক বাকি মেয়েদেরও উদ্ধার করুক।

উল্লেখ্য যে, এর আগেও স্বামী নিত্যানন্দের বিরুদ্ধে যৌন কেলেঙ্কারিসহ ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে।

এমএফ/

 

দক্ষিণ এশিয়া: আরও পড়ুন

আরও