বাবরি মসজিদের জায়গায় রামমন্দির, আপিল করবেন মুসলিমরা

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

বাবরি মসজিদের জায়গায় রামমন্দির, আপিল করবেন মুসলিমরা

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:২৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৯, ২০১৯

বাবরি মসজিদের জায়গায় রামমন্দির, আপিল করবেন মুসলিমরা

ভারতের উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যার বহুল আলোচিত বাবরি মসজিদ মামলার রায়ে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, ফাঁকা জায়গায় বাবরি মসজিদ নির্মাণ করা হয়নি। সেখানে অন্য কাঠামো ছিল যা, ইসলামিক ছিল না। ফলে বিতর্কিত ওই জায়গায় রামমন্দির নির্মিত হবে। আর বাবরি মসজিদের জন্য অন্যত্র সরকারকে পাঁচ একর জায়গা বরাদ্দ দিতে বলা হয়েছে। তবে দেশটির সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার ঘোষণা দিয়েছেন মুসলিমরা।

এনডিটিভি জানায়, বাবরি মসজিদ নিয়ে দেওয়া রায়কে ‘অন্যায্য’ অভিহিত করে আপিল করার ঘোষণা দিয়েছেন মুসলিমরা। ভারতের কেন্দ্রীয় ওয়াকফ বোর্ড আপিল করার চিন্তা করছে বলে জানিয়েছেন তাদের আইনজীবী জাফারিয়াব জিলানি।

তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করি, এটা অনায্য ...আমরা এই রায় মানতে পারছি না। আমরা রায়ের সব অংশের সমালোচনা করছি না।’

এই আইনজীবী বলেন, “সমস্ত জমি অন্য পক্ষকে দেওয়া ঠিক নয়। আমরা শীর্ষ আদালতকে সম্মান জানাই, আমাদের রায়ের সঙ্গে সহমত না হওয়ার অধিকার আছে। শীর্ষ আদালতে অনেক মামলারই রায় বদলে গেছে। এ রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন জানানোর অধিকার আমাদের আছে।’’

সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত তিন সদস্যের দল মধ্যস্থতায় ব্যর্থ হওয়ার পর, ৬ আগস্ট দৈনিক শুনানি শুরু করে সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চ। ৪০দিন শুনানির পর, ১৬ আগস্ট দৈনিক শুনানি শেষ হয়।

এদিকে, রায়ের পর বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি যাতে তৈরি না হয়, সেজন্য ভারতের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। জারি করা হয়েছে সতর্কতা। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি শান্তি ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার ওপর জোর দিয়েছেন।

অযোধ্যা মামলা নিয়ে যাতে কোনো গুজব ছড়ানো না হয়, সেদিকে নজর রাখতে প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূল কংগ্রেস দলের বৈঠকের পর বলেছেন, সুপ্রিম কোর্টের রায় যা-ই হোক না কেন, এতে যেন দেশের শান্তি ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট না হয়। তিনি সবাইকে সতর্ক থাকতে আহ্বান জানিয়েছেন।

গত ২০ অক্টোবর থেকে অযোধ্যা শহরে জারি রয়েছে ১৪৪ ধারা। আগামীকাল থেকে শহরে জারি হচ্ছে কারফিউ। এই সান্ধ্য আইন অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণার পর চার দিন পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। অযোধ্যার নিরাপত্তা জোরদার করার লক্ষ্যে সেখানে মোতায়েন করা হয়েছে ৪০ কোম্পানি সেনা। উত্তর প্রদেশের ধর্মীয় জায়গাগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

আরপি

 

দক্ষিণ এশিয়া: আরও পড়ুন

আরও