গরু পাচারের অভিযোগে এবার ২৪ জনকে বেঁধে মারধর

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

গরু পাচারের অভিযোগে এবার ২৪ জনকে বেঁধে মারধর

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:১৪ অপরাহ্ণ, জুলাই ০৮, ২০১৯

গরু পাচারের অভিযোগে এবার ২৪ জনকে বেঁধে মারধর

গরু পাচার করার অভিযোগে ২৪ জনকে একসঙ্গে বেঁধে, রাস্তায় হাঁটু মুড়ে, কান ধরে বসিয়ে বেধড়ক মারধর করেছে এক দল কথিত গোরক্ষক। গতকাল রোববার ভারতের মধ্যপ্রদেশের খান্ডোয়া জেলার সাভালিকেড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

যাদের মারধর করা হয়েছে তারা খান্ডোয়া, সেহোর, দেওয়াস ও হরদা জেলার বাসিন্দা। ২৪ জনের মধ্যে ৬ জন মুসলিম ছিলেন।

আক্রান্তদের দাবি, মহারাষ্ট্রে পশু মেলায় গরু নিয়ে যাচ্ছিলেন তারা। সাভালিকেড়া গ্রামে পৌঁছতেই এক দল গোরক্ষক তাদের ঘিরে ধরে। তারা সংখ্যায় প্রায় ১০০ জনের মতো ছিল। গরু চুরির অভিযোগ তুলে বেধড়ক মারধর করা শুরু করে ওই গোরক্ষকরা। তার পর দড়ি দিয়ে বেঁধে তিন কিলোমিটার তাদের হাঁটিয়ে খালোয়া থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। শুধু তাই নয়, হামলাকারীরা তাদের জোর করে ‘গো মাতা কি জয়’ বলতে বাধ্য করে।

আনন্দবাজার বলছে, জেলা পুলিশ সুপার শিবদয়াল সিংহ জানিয়েছেন, আক্রান্তরা মেলায় গরু নিয়ে যাওয়ার দাবি করলেও তেমন কোনও প্রমাণ দিতে পারেননি।

তিনি বলেন, ‘আক্রান্তদের কাছে কোনও বৈধ নথি ছিল না। এবং যে গাড়ি করে গরুগুলো নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল সেটারও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পাওয়া যায়নি। মধ্যপ্রদেশ গোবংশ বধ প্রতিষেধ অধিনিয়ম-এ তাদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে। গ্রেফতারও করা হয়েছে তাদের।’

তবে হামলাকারীদের কাউকেই গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। তারা জানিয়েছে, হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তার পর প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

প্রসঙ্গত, এই মধ্যপ্রদেশেই মে মাসে গোমাংস নিয়ে যাওয়ার অভিযোগে গাছে বেঁধে মারধরের অভিযোগ উঠেছিল গোরক্ষকদের বিরুদ্ধে। বার বার একই ঘটনা ঘটছে, তার পরও দোষীরা কীভাবে ছাড় পেয়ে যাচ্ছে তা নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়েছে রাজ্য প্রশাসন।

আরপি

 

দক্ষিণ এশিয়া: আরও পড়ুন

আরও