অভ্যর্থনায় সিক্ত মোদি, সরকার গঠন ২৬ মে

ঢাকা, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

অভ্যর্থনায় সিক্ত মোদি, সরকার গঠন ২৬ মে

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:৩১ অপরাহ্ণ, মে ২৩, ২০১৯

অভ্যর্থনায় সিক্ত মোদি, সরকার গঠন ২৬ মে

আভাস বুথফেরত জরিপেই মিলেছিল। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নির্বাচন কমিশনের ঘোষণায় তা বাস্তব হতে থাকে। ভূমিধস বিজয়ে ফের ক্ষমতায় আসছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোট এনডিএ।

মূলত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ম্যাজিকেই এই সাফল্য। ফলে টানা দ্বিতীয়বারের বিজয় উদযাপনে দলীয় নেতাকর্মী ছাড়াও লাখো জনতা হাজির হন বিজেপির কেন্দ্রীয় দফতরে। সেখানে তারা নেচে-গেয়ে উল্লাস করতে থাকেন।

নয়াদিল্লির এই কার্যালয়ের সামনে সবার অপেক্ষা কখন আসবেন সেই জাদুকর নরেন্দ্র মোদি? অবেশেষে সন্ধ্যার পর দলীয় সভাপতি অমিত শাহকে নিয়ে হাজির হন মোদি।

অস্থায়ী মঞ্চে উঠতেই করতালির উষ্ণ অভ্যর্থনায় জনতা সিক্ত করেন মোদি-অমিত জুটিকে। গোলাপের সঙ্গে দলীয় প্রতীক পদ্মের পাঁপড়িতে ততক্ষণে আচ্ছন্ন তারা। এ সময় সেখানে দল ও জোটের সিনিয়র নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।

ইতোমধ্যে ভারতের সংবাদমাধ্যমের তথ্যে, সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোট ৫৪৩টির মধ্যে ৩৫২ আসনে এগিয়ে রয়েছে। আর এককভাবে বিজেপি ৩০০ আসনে এগিয়ে। বিপরীতে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ জোট ১০০ আসন পায় কিনা সন্দেহ।

জনতার মাঝে আসার আগে মোদি টুইটেও জানিয়ে দেন, ভারত আবারও বিজয়ী হয়েছে। একসঙ্গে আমরা এগিয়ে যাব, একসঙ্গে হবে উন্নতি। একসঙ্গে আমরা শক্তিশালী ও অংশগ্রহণমূলক ভারত গড়ে তুলব। ভারত আবারও বিজয়ী হবে।

নিরঙ্কুশ এ বিজয়ে প্রধানমন্দ্রী নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়াও বিশ্বনেতারা অভিনন্দন জানিয়েছেন। চিরশত্রু পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানতো এক কাঠি এগিয়ে টুইট করেছেন, মোদির সঙ্গে দক্ষিণ এশিয়ার শান্তি, সমৃদ্ধি ও উন্নতির কাজে যুক্ত হতে তিনি উন্মুখ হয়ে আছেন।

বিরোধী কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী নিজের দল ও জোটের পরাজয় মেনে নিয়ে নরেন্দ্র মোদিকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। একই সঙ্গে দলের সভাপতি থেকে তার সরে যাওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন।

রাতে দলীয় কার্যালয়ের সামনে জড়ো লাখো জনতার উদ্দেশে ভাষণ দেন নরেন্দ্র মোদি, দল ও জোটের সিনিয়র নেতারা। তারা বিজেপির কর্মী এবং ভোটারদের ধন্যবাদ জানান।

নিজের বক্তব্যে নরেন্দ্র মোদি বিরোধী কংগ্রেস ও পর্যবেক্ষকদের কড়া সমালোচনা করেন, ‘ধর্মনিরপেক্ষতার মুখোশ পরে এবার কোনো দল ভোটারদের বিপথে নিতে পারেনি।’

হিন্দিতে তিনি যা বলেন, তার বাংলা দাঁড়ায়- আমাদের আজকের উৎসবে স্বয়ং ভগবান আকাশসমেত হাজির হয়েছেন।

মোদি বলেন, ‘এই নির্বাচনে যদি কেউ বিজয়ী হয়ে থাকেন, এটি জনতার জয়, গণতন্ত্রের বিজয়।’

চিৎকারে আকাশ-বাতাস প্রকম্পিত করতে থাকার জনতার উদ্দেশে তিনি আরও বলেন, ‘তারাই আমাদের বিজয়ী করেছে, যারা সৎ সরকার চান, টয়লেট এবং সুযোগ-সুবিধার জন্য উন্মুখ। আমি তাদের আশ্বস্ত করছি- আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হবে। আমরা একে অন্যের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করব।’

নরেন্দ্র মোদির আগে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ তার বক্তব্য বলেন, ‘জনগণ বিপুল সমর্থনের মাধ্যমে জাতিভেদ ও রাজতন্ত্রের রাজনীতিকে ছুড়ে ফেলেছে।’

বিজয় উদযাপনের সঙ্গে সঙ্গে বিজেপি নতুন সরকার গঠনের তৎপরতাও শুরু করেছে। সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাদ্যম বলছে, আগামী ২৬ মে’ই নরেন্দ্র মোদি তার নতুন সরকার গঠন করতে পারেন।

আইএম

আরও পড়ুন...
হার কবুল রাহুলের, মোদিকে অভিনন্দন
নেতানিয়াহুর ‘বন্ধু’ মোদিসঙ্গ পেতে উন্মুখ ইমরান!
আসানসোলে মুনমুনকে হারিয়ে জয়ের পথে বাবুল
মোদি ঝড়েও ঘাটালে জয় তৃণমূলের দেবের

 

দক্ষিণ এশিয়া: আরও পড়ুন

আরও