ভারতে মুসলিম পরিবারের ওপর হামলা-মারধর-লুটপাট (ভিডিও)

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ | ১২ বৈশাখ ১৪২৬

ভারতে মুসলিম পরিবারের ওপর হামলা-মারধর-লুটপাট (ভিডিও)

পরিবর্তন ডেস্ক ২:৩০ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৩, ২০১৯

ভারতে মুসলিম পরিবারের ওপর হামলা-মারধর-লুটপাট (ভিডিও)

পাকিস্তান যাও এবং সেখানে গিয়ে খেল- এই বলে একটি মুসলিম পরিবারের লোকজনের ওপর হামলা, বাড়িঘরে ভাংচুর এবং মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের গুরগাঁওয়ে।

ভারতীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, ধামাসপুর গ্রামের একটি মুসলিম পরিবার ও সেখানে বেড়াতে আসা আত্মীয়-স্বজনেরর ওপর হামলা চালিয়েছে স্থানীয় ২০ থেকে ২৫ জন লোক। বৃহস্পতিবার দেশটির হোলি উৎসবের দিন সন্ধ্যায় ওই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ছয়জনকে আটক করেছে পুলিশ।

খবরে বলা হয়েছে, ওই পরিবারের কয়েকজন ছেলে বাড়ির বাইরে একটি ফাঁকা জায়গায় ক্রিকেট খেলছিল। এ সময় দুই যুবক এসে তাদের বলে, ‘পাকিস্তানে গিয়ে খেল’। এরপর কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আরো কিছু লোক এসে তাদের ওপর মারধর করে এবং বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে মূল্যবান জিনিসপত্র লুটে নিয়ে যায়।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বলছে, ওই ঘটনায় একটি মামলা (এফআইআর) হয়েছে। মামলা থেকে জানা যায়, স্ত্রী সামীমার সঙ্গে ছয় সন্তান নিয়ে ওই গ্রামে থাকেন মোহাম্মাদ সাজিদ।

অভিযোগে সাজিদের ভাতিঝা দিলশাদ, যিনি নিজেও হামলার শিকার হয়েছেন, বলেছেন, ‘তিনি আরো কয়েকজন ছেলেকে নিয়ে একটি খালি জায়গায় ক্রিকেট খেলছিলেন। এ সময় দুইজন অপরিচিত লোক একটি মোটরসাইকেলে করে এসে বলেন, ‘তোমরা এখানে কী করছো? পাকিস্তান যাও এবং সেখানে গিয়ে খেল।’ তারা আমাদের সঙ্গে বাদানুবাদ শুরু করে দেয় এবং যখন আমার চাচা হস্তক্ষেপ করেন তখন মোটরসাইকেলের পেছনে থাকা লোকটি তাকে (চাচা) চড় দেন এবং বলেন, ‘তোমারা দাড়াও, আমারা তোমাদের দেখাচ্ছি’।’

দিলশাদ অভিযোগ করেন, এ ঘটনার ১০ মিনিট পর তারা দেখেন, দুটি মোটরসাইকেলে করে ছয় যুবক এবং পায়ে হেঁটে বেশ কিছু লোক তাদের বাড়ির দিকে আসছে। এ সময় তাদের হাতে বর্শা, লাঠি ও তলোয়ার ছিল।

তিনি বলেন, ‘তাদের দেখে আমরা দৌড়ে ঘরের ভেতর যাই, কিন্তু তারা আমাদের বাইরে আসার নির্দেশ দেয়, তা না হলে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এতেও আমরা ঘরের বাইরে না আসায় তারা জোর করে ঘরে ঢুকে পড়ে এবং সবাইকে মারধর শুরু করে।’

তিনি অভিযোগ করেন, এ সময় পরিবারের এক সদস্যের মোবাইল ফোন কেড়ে নিয়ে তাকেও মারধর করে হামলাকারীরা। সেইসঙ্গে শিশুদের ধাক্কা দেয় এবং মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে যায়।

পুলিশ বলছে, এ ঘটনায় কয়েকটি ধারায় একটি মামলা করা হয়েছে।

ভন্দসি পুলিশ স্টেশনের ইন্সপেক্টর সুরেন্দার কুমার বলেছেন, ‘অভিযুক্তদের অনেককেই চিহ্নিত করা গেছে। আমরা অভিযান চালাচ্ছি এবং আশা করছি, শিগগিরই তাদের আটক করতে পারব।’

সামীমা বলেন, ‘আমি রান্না ঘরে রান্না করছিলাম এবং বাইরে গণ্ডগোল শুনে বেরিয়ে এসে দেখি, ওই লোকগুলো আমাদের ঘরে ঢুকে মারধর করছে। আমি তাদের বেরিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করি, কিন্তু তারা আমার কথায় কর্ণপাত করেনি।’

তিনি বলেন, ‘তারা আমাদের জানালা ও গাড়ি ভাংচুর করেছে এবং স্বর্ণের কানের দুল, স্বর্ণের চেইন ও ২৫ হাজার রুপিসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে গেছে।’

দিলশাদ মামলায় অভিযোগ করেছেন, ‘যাওয়ার সময় হামলাকারীরা বাড়ি খালি করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে, আর না দিলে জায়গাটি দখল করার হুমকি দিয়ে গেছে।’

অন্যদিকে, গ্যাস সিলিন্ডারের মিস্ত্রী, পুরনোর ফার্নিচার ও নির্মাণ কাজের সঙ্গে জড়িত সাজিদ বলেন, ‘তিন বছর আগে আমরা এই বাড়ি নির্মাণ করেছি। আমরা এখানে নিজেরা মিলেমিশে থাকি; এ ধরনের ঘটনা আর কখনও দেখিনি।’

আরপি

ভিডিও...