কাশ্মীর হামলার ‘মাস্টার মাইন্ড’ নিহত!

ঢাকা, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯ | ৮ চৈত্র ১৪২৫

কাশ্মীর হামলার ‘মাস্টার মাইন্ড’ নিহত!

পরিবর্তন ডেস্ক ১:৩৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৯

কাশ্মীর হামলার ‘মাস্টার মাইন্ড’ নিহত!

এএনআই

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের পুলওয়ামায় হামলার সন্দেহভাজন মাস্টারমাইন্ড আব্দুল রশিদ গাজী সেনা অভিযানে নিহত হয়েছেন বলে খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় বেশ কয়েকটি গণমাধ্যম।

এবিপি নিউজ বাংলা এবং নিউজ১৮ টিভির খবরে দাবি করা হয়েছে, সোমবার পুলওয়ামায় সেনা অভিযানকালে রক্তক্ষয়ী গোলাগুলিতে মৃত্যু হয়েছে জইশ-ই মোহাম্মদের কমান্ডার আব্দুল রশিদ গাজীর।

এই ঘটনাকে বড় ধরনের সাফল্য দাবি করছে ভারতীয় সেনাবাহিনী৷ 

দুই পক্ষের গোলাগুলিতে মেজর ডিএস ডনডিয়াল, হেড কনস্টবল সাভা রাম, সিপাই অজয় কুমার এবং সিপাই হরি সিং নিহত হন।

গোলাগুলিতে কামরান নামে জইশ-ই-মোহাম্মদের আরো এক সদস্য নিহত হবার খবরও গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে৷

তবে ভারতের প্রভাবশালী এনডিটিভি, আনন্দবাজার পত্রিকা এবং টাইমস অফ ইন্ডিয়ার খবরে বলা হচ্ছে, অভিযানে নিহত জইশ-ই-মোহাম্মদের দুই সদস্যের পরিচয় এখনও শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।

এএনআই

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, জইশ-ই মোহাম্মদের কমান্ডার এই আব্দুল রশিদ গাজী আফগানিস্তানে যুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন এবং তিনি একজন ইমপ্রোভাইসড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস (আইইডি) বিশেষজ্ঞ।

পুলওয়ামার অবন্তিপুরায় ভারতের কেন্দ্রীয় রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) গাড়িবহরে বিস্ফোরক ভর্তি গাড়ি নিয়ে আত্মঘাতী হামলা চালানো আদিল দারকে প্রশিক্ষণ দিয়েছিলেন রশিদ গাজী।

ভারতীয় বার্তা সংস্থা এএনআইয়ের খবরে বলা হয়, আব্দুল রশিদ গাজী জইশ-এর টপ আইইডি বিশেষজ্ঞ ছিলেন। জইশ মোহাম্মদের প্রধান মাসুদ আজহার তার ভাতিজার মাধ্যমে কাশ্মীরে সংগঠন পরিচালনা করেন৷ কিন্তু গত এক বছরে ভারতীয় সেনার অপারেশন অল-আউট চলাকালীন মাসুদের ভাতিজার মৃত্যু হয়৷ তার মৃত্যুর পর যাবতীয় দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল গাজীকেই৷

পুলওয়ামা হামলায় আত্মঘাতী স্বাধীনতাকামী আদিল দারের প্রশিক্ষক রশিদ গাজী ওই এলাকাতেই লুকিয়ে ছিলেন বলে ভারতীয় গোয়েন্দাদের কাছে খবর ছিল। সেই গোপন খবরের ভিত্তিতে রোববার রাত থেকে শুরু হয় অভিযান।

এআরই/এএসটি
আরও পড়ুন...
কাশ্মীরে হামলার মূলহোতার ‘খোঁজ’ পাওয়ার দাবি ভারতের