উলফা নেতা পরেশ বড়ুয়া নিহত, দাবি ভারতীয় গোয়েন্দাদের

ঢাকা, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

উলফা নেতা পরেশ বড়ুয়া নিহত, দাবি ভারতীয় গোয়েন্দাদের

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:২৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৭, ২০১৮

উলফা নেতা পরেশ বড়ুয়া নিহত, দাবি ভারতীয় গোয়েন্দাদের

পরেশ বড়ুয়া, ফাইল ছবি

উলফা (ইউনাইটেড লিবারেশন ফ্রন্ট অব আসাম) কমান্ডার ইন চিফ পরেশ বড়ুয়া সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে ভারতীয় গোয়েন্দাদের একাংশ। যদিও উলফা সূত্রে এখনও এই খবরের সত্যতা স্বীকার করা হয়নি।

আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মিয়ানমার-চীন সীমান্তে ১০-১২ দিন আগেই একটি দুর্ঘটনা ঘটে। তাতে গুরুতর আহত হয়েছিলেন পরেশ। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিনি বেশ কিছু দিন ধরেই চিকিৎসাধীন ছিলেন।

ভারতীয় গোয়েন্দাদের একাংশের দাবি, ৪৮ ঘণ্টা আগেই তার মৃত্যু হয়েছে। যদিও উলফার একটা অংশের দাবি, শীর্ষ নেতার সঙ্গে শনিবার পর্যন্ত তাদের কয়েক জনের যোগাযোগ হয়েছে। সেই সময় অসুস্থ ছিলেন তিনি। তবে মারা যাওয়ার মতো পরিস্থিতি ছিল না বলেই দাবি তাদের।

আসাম পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের শীর্ষ কর্তারা জানিয়েছেন, তারা পরেশ বড়ুয়ার মৃত্যুর খবর শুনেছেন।

ভারতীয় সেনা গোয়েন্দা সূত্রেও জানানো হয়েছে, এই খবর তাদের কাছেও এসে পৌঁছেছে। যদিও ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’ ওই উলফা নেতার পরিবারের কাছে এই ধরনের কোনও খবর আসেনি বলে জানানো হয়েছে আসাম পুলিশের পক্ষ থেকে।

উলফা সূত্রের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়েছে, সম্প্রতি পরেশ বড়ুয়া বাইক দুর্ঘটনার কবলে পড়েন। ওই দুর্ঘটনায় তার কোমর ও পায়ে চোট লাগে। তিনি গুরুতর আহত হন।

দীর্ঘ এক দশকেরও বেশি সময় ধরে মিয়ানমার-চীন সীমান্তের রুইলি এলাকায় থাকেন পরেশ বড়ুয়া। সম্প্রতি ওই নেতার ক্যাম্প থেকে আসা এক আত্মসমর্পণকারী উলফা ক্যাডারের কাছ থেকে জানা যায়, ডায়াবেটিসের জন্য পরেশের শারীরিক অবস্থা বেশ খারাপ। ডায়াবেটিস থাকায় আহত পরেশের শারীরিক পরিস্থিতি দিন দিন খারাপ হচ্ছিল বলেও জানা যায় উলফা সূত্রে।

এর আগেও বেশ কয়েক বার পরেশ বড়ুয়ার মৃত্যু ঘিরে গুজব তৈরি হয়েছিল। তবে শেষ পর্যন্ত সেই সব খবর ভুল প্রমাণিত হয়। প্রতি বারই উলফার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ভুল খবর রটানো হয়েছিল।

চীন-মিয়ানমার সীমান্তে গাড়ি দুর্ঘটনায় পরেশ বড়ুয়ার মৃত্যুর খবরটি এবারও ভুয়া বলে জানিয়েছে উলফার একটি সূত্র।

উলফা নেতা অনুপ চেটিয়া জানিয়েছেন, পরেশ বড়ুয়া মারা গেছেন, আমি বিশ্বাস করতে পারছি না। এক মাস আগেই আমার সঙ্গে কথা হয়েছিল। দুর্ঘটনায় আহত হয়ে পায়ে আঘাত লেগেছিল এবং তিনি এখন সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছিলেন আমাকে।

আরপি