গত ৩ বছরে অপরাধ দমনের নামে ভেনেজুয়েলায় কয়েকশ' লোককে হত্যা!

ঢাকা, বুধবার, ২৩ জানুয়ারি ২০১৯ | ১০ মাঘ ১৪২৫

গত ৩ বছরে অপরাধ দমনের নামে ভেনেজুয়েলায় কয়েকশ' লোককে হত্যা!

পরিবর্তন ডেস্ক ১১:৫৯ অপরাহ্ণ, জুন ২২, ২০১৮

 গত ৩ বছরে অপরাধ দমনের নামে ভেনেজুয়েলায় কয়েকশ' লোককে হত্যা!

অপরাধ দমনের নামে গত তিন বছরে কয়েক শ' মানুষকে হত্যা করেছে ভেনেজুয়েলার আইনশৃংখলা বাহিনী। জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থার এক প্রতিবেদনে এমনটা ওঠে আসে। বিবিসির সংবাদ।

প্রতিবেদনে জানা যায়, গত তিন বছরে অভিযানের সময় অপেক্ষাকৃত দরিদ্র অঞ্চলে যে সংখ্যক তরুণকে হত্যা করা হয়, তা আসলে খুব আশঙ্কাজনক।

মানবাধিকার সংস্থার প্রধান বলেন, এ অভিযানে কোন ধরণের আটকের ঘটনা ঘটেনি। কোনভাবেই আইন কাজ করেনি এখানে।

তবে ভেনেজুয়েলা মানবাধিকার সংস্থার এ অভিযোগ অস্বীকার করে দিয়ে এসবকে মিথ্যা বলে উড়িয়ে দিয়েছে।

গত কয়েক বছর ধরে রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে দেশটি। সরকারের বিরুদ্ধে একের পর এক বিক্ষোভ দমনে আইন শৃংখলা বাহিনীর এসব অভিযান চালানো হয় বলে জানা যায়।  

 
ভেনেজুয়েলা বিশ্বের বৃহত্তম তেল সংরক্ষণকারী দেশ। দেশটির প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট হুগো শ্যাভেজ ক্ষমতায় থাকাকালীন ১৯৯৯ সাল থেকে ২০১৩ সালে তার মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তেল অর্থনীতিকে সামাজিক কর্মসূচীতে কাজে লাগান।

 তবে বিরোধী গোষ্ঠী দাবি করে, তেল বিক্রি থেকে এসব টাকার বেশিরভাগই অব্যবস্থাপনা, পৃষ্টপোষকতা এবং দুর্নীতির নামে অপচয় হয়েছে।

শ্যাভেজের উত্তরাধিকারী বর্তমান প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর বিরুদ্ধে সমালোচকরা সোচ্চার। তার নীতির কারণে দেশটির অর্থনৈতিক ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে যার কারণে হাজার হাজার মানুষ উন্নত জীবিকার আশায় দেশের বাইরে পালিয়ে গেছে।


গত বছরও দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতি ও খাদ্য গুদামজাতের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের সময় পুলিশের সাথে সংঘর্ষে কয়েক ডজন বিক্ষোভকারী নিহত হয়।

মে মাসে নির্বাচনে জিতে আবার ক্ষমতায় আসে মাদুরো। বিরোধী দল এ নির্বাচন বয়কট করে, সেইসাথে জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক মহলেরও সমালোচনার শিকার হয় এ নির্বাচন।  

আরজি/