এলআরবি নিয়ে দ্বন্দ্বের অবসান

ঢাকা, বুধবার, ২২ মে ২০১৯ | ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

এলআরবি নিয়ে দ্বন্দ্বের অবসান

পরিবর্তন ডেস্ক: ৪:০১ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০১৯

এলআরবি নিয়ে দ্বন্দ্বের অবসান

১৯৯০ সালের ৫ এপ্রিল এলআরবি প্রতিষ্ঠা করেন উপমহাদেশের বিখ্যাত গিটারিস্ট আইয়ুব বাচ্চু। শুরুতে এই ব্যান্ডের নাম ছিল ‘লিটল রিভার ব্যান্ড’ (এলআরবি)। ১৯৯৭ সালে নাম বদলে রাখা হয় ‘লাভ রানস ব্লাইন’ (এলআরবি)।

এ ব্যান্ডের কর্ণধার, ব্যান্ডটির প্রাণ ভোকাল ও প্রতিষ্ঠাতা আইয়ুব বাচ্চু গত বছরের ১৮ অক্টোবর না ফেরার দেশে পাড়ি জমান। তারপর থেকেই বেশ সংকটের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে লাভ রানস ব্লাইন্ড (এলআরবি) । থমকে যায় এলআরবি’র পথচলা। অনিশ্চিত হয়ে পড়ে এর ভবিষ্যৎ।

৫ এপ্রিল চমক হিসেবে কণ্ঠশিল্পী বালামের নাম ঘোষণা করা হয় দলটির ভোকাল হিসেবে। বালাম যোগদানের ১০ দিনের মাথায় বদলে যায় আইয়ুব বাচ্চুর সেই বিখ্যাত ‘এলআরবি’র নাম! বর্তমানের সদস্যরা এখন থেকে ‘বালাম অ্যান্ড দ্য লিগেসি’ ব্যান্ডের সদস্য হিসেবে পরিচিত হবেন বলে জানান।

এতে আইয়ুব বাচ্চুর ভক্তরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। নাম পরিবর্তনের কারণ হিসেবে জানানো হয়, আইয়ুব বাচ্চুর পরিবার চাচ্ছিলেন না ‘এলআরবি’র অন্য সদস্যরা এই নামেই ব্যান্ডটির কার্যক্রম চালাতে থাকুক। আইয়ুব বাচ্চুর পরিবারের সঙ্গে এলআরবি ব্যান্ডের অন্য সদস্যদের মনমালিন্যই ছিল এইসব পরিবর্তনের আসল কারণ। এদিকে এলআরবি আর থাকছে না বলে মন খারাপ হয়েছিল ব্যান্ডটির ভক্তদের।

অবশেষে সুখবর এলো। মঙ্গলবার আইয়ুব বাচ্চুর একমাত্র ছেলে আহনাফ তাজোয়ার আইয়ুব জানান, এলআরবি নাম নিয়ে তার ও তার পরিবারের কোনও আপত্তি নেই।

বুধবার দুপুরে এলআরবি ব্যান্ডের ম্যানেজার শামীম আহমেদ বলেন, ‘এলআরবির নাম পরিবর্তন হয়ে ‘বালাম অ্যান্ড দ্য লিগেসি’ হচ্ছে না। আমরা এলআরবি নিয়েই সামনের দিকে এগিয়ে যাবো। যেই সমস্যাগুলো হয়েছিল সেটা ঠিক হয়ে গেছে। এলআরবি নাম নিয়ে বাচ্চু ভাইয়ের পরিবারের কোনও আপত্তি নাই জেনে খুব খুশি হয়েছি।’

উচ্চশিক্ষার জন্য আহনাফ তাজোয়ার আইয়ুব এখন কানাডার ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলাম্বিয়ায় পড়াশোনা করছেন।

‘এলআরবি’র বর্তমান লাইন আপ-শামীম-ব্যান্ড ম্যানেজার, ভোকাল-বালাম, মাসুদ-গিটার, স্বপন-বেস আর রোমেল-ড্রামস।

আরও পড়ুন...
পাল্টে গেল এলআরবির নাম

জিজাক/