উর্দু ছবিতেও গান গেয়েছেন শাহনাজ রহমত উল্লাহ

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

উর্দু ছবিতেও গান গেয়েছেন শাহনাজ রহমত উল্লাহ

পরিবর্তন ডেস্ক: ৯:৫৫ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৪, ২০১৯

উর্দু ছবিতেও গান গেয়েছেন শাহনাজ রহমত উল্লাহ

গানের জগতে উজ্জ্বল নক্ষত্রের নাম শাহনাজ রহমত উল্লাহ। শাহনাজ রহমত উল্লাহ দেশাত্মবোধক গান গেয়ে জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। দেশাত্ববোধক গানের পাশাপাশি তিনি চলচ্চিত্রের গানেও কণ্ঠ দেন।

তার গাওয়া ‘যে ছিল দৃষ্টির সীমানায়’, ‘সাগরের তীর থেকে’, ‘খোলা জানালা’, ‘পারি না ভুলে যেতে’ সহ অনেক গানই এখনও গানপ্রেমীদের মুখে মুখে।

১৯৬৩ সালে ১১ বছর বয়সে ‘নতুন সুর’ নামক চলচ্চিত্রে কণ্ঠ দেওয়ার মাধ্যমে তার কর্মজীবন শুরু হয়। ১৯৬৪ সালে প্রথম টেলিভিশনে তার গাওয়া গান প্রচারিত হয়।

তিনি গাজী মাজহারুল আনোয়ার, আলাউদ্দিন আলী, খান আতা প্রমুখের সুরে গান গেয়েছেন। পাকিস্তানে থাকার সুবাদে করাচী টিভিসহ উর্দু ছবিতেও গান গেয়েছেন এই গুণী শিল্পী।

যেসব চলচ্চিত্রের নেপথ্যে তার কণ্ঠ রয়েছে

গুনাই (১৯৬৬)

ডাক বাবু (১৯৬৬)

বেহুলা (১৯৬৬)

নবাব সিরাজউদ্দৌলা (১৯৬৬)

সাইফুল মুল্‌ক্‌ বদিউজ্জামাল (১৯৬৭)

নয়নতারা (১৯৬৭)

আনোয়ারা (১৯৬৭)

রাখাল বন্ধু (১৯৬৮)

সাত ভাই চম্পা (১৯৬৮)

বাঁশরী (১৯৬৮)

সুয়োরানী দুয়োরানী (১৯৬৮)

পীচ ঢালা পথ (১৯৬৮)

এতটুকু আশা (১৯৬৮)

পরশমণি (১৯৬৮)

মুক্তি (১৯৬৯)

ভানুমতি (১৯৬৯)

পাতালপুরীর রাজকন্যা (১৯৬৯)

আলিঙ্গন (১৯৬৯)

নীল আকাশের নীচে (১৯৬৯)

বিজলী (১৯৭০)

মধুমিলন (১৯৭০)

আমির সওদাগর ও ভেলুয়া সুন্দরী (১৯৭০)

কত যে মিনতি (১৯৭০)

রং বদলায় (১৯৭০)

বিনিময় (১৯৭০)

অধিকার (১৯৭০)

স্মৃতিটুকু থাক (১৯৭১)

জয় বাংলা (১৯৭২)

গান গেয়ে পরিচয় (১৯৭২)

বাহরাম বাদশাহ (১৯৭২)

অশ্রু দিয়ে লেখা (১৯৭২)

প্রতিশোধ (১৯৭২)

ঘুড্ডি (১৯৮০)

ছুটির ফাঁদে (১৯৯০)

১৯৯২ সালে তিনি একুশে পদক এবং ১৯৯০ সালে ছুটির ফাঁদে চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ নারী কণ্ঠশিল্পী হিসেবে বাংলাদেশ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন।

২০১৬ সালে ‘চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ড’ আয়োজনে আজীবন সম্মাননা, ২০১৩ সালে সিটি ব্যাংক থেকে গুণীজন সংবর্ধনা দেওয়া হয় তাকে। এছাড়া গান গেয়ে আরও অসংখ্য পুরস্কার আর সম্মাননা পেয়েছেন তিনি।

জিজাক/
আরও পড়ুন...
শাহনাজ রহমত উল্লাহর জনপ্রিয় গানসমূহ

 

সংগীত: আরও পড়ুন

আরও