অনুপম-তাহসানের সঙ্গে নীল

ঢাকা, সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯ | ১১ চৈত্র ১৪২৫

অনুপম-তাহসানের সঙ্গে নীল

পরিবর্তন ডেস্ক ৮:৩৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ০১, ২০১৯

অনুপম-তাহসানের সঙ্গে নীল

নিজেকে ছাড়িয়ে যাচ্ছেন এ সময়ের ব্যস্ততম টিভি উপস্থাপিকা নীল। পুরো নাম নীল হুররে জাহান। বাংলাভিশন, এনটিভি, জিটিভির পর এবার নতুন বছরকে স্বাগত জানালেন নিজ কণ্ঠে। ২০১৮ সালকে পেছনে ফেলে গানে-গানে নতুন বছরের আবাহন নিয়ে উপস্থাপনা করলেন দুই বাংলার দুই জনপ্রিয় সংগীতশিল্পীর অনুষ্ঠান।

সোমবার রাতে আরটিভিতে প্রচারিত হয়েছে গ্রামীণফোন প্রেজেন্টস মনের মানুষ-ক্লাব এশিয়া। আরটিভির বিশেষ এ আয়োজনে নীলের উপস্থাপনায় গান গেয়েছেন বাংলাদেশ ও ভারতের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী তাহসান খান ও অনুপম রায়, সঙ্গে ছিল এই দুই শিল্পীর নিজস্ব ব্যান্ড।

দুই ঘণ্টার অনুষ্ঠানে নীল জেনেছেন অনুপম রায়ের অনুভূতি। কলকাতার এই শিল্পী তার বাংলাদেশ-প্রেম জানিয়েছেন দর্শকদের। বলেছেন, ‘অনেকটাই স্বপ্নের মতো কেটে যায় বাংলাদেশে এলে।’ নীলের ‘কেমন লাগছে বাংলাদেশে এসে’ এমন প্রশ্নে অনুপমের কণ্ঠে সহাস্য উত্তর। বললেন, ‘মুখিয়ে থাকি বাংলাদেশে আসার জন্য। কবে ডাক আসবে বাংলাদেশ থেকে, আমরা অপেক্ষা করি।’ ২০১৮-এর শেষে নতুন বছরের সন্ধিক্ষণে ঢাকার টেলিভিশনে সরাসরি গাইতে পেরে অনুপমের কণ্ঠে উচ্ছ্বাস ছিল বেশ।

নীলের উপস্থাপনায় গল্প-কথায় নিজের অনেক কথা শুনিয়েছেন অনুপম। দর্শকদের তার জনপ্রিয় গান ‘আমি আজকাল ভালো আছি’ দিয়েই মাতানো শুরু করেন কলকাতার এই ব্যান্ড তারকা।
অনুষ্ঠানে অনুপম রায়ের স্বরে উঠে এসেছে বাংলা ব্যান্ড সংগীতের জনপ্রিয় শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর ‘তুমি কেন বোঝো না, তোমাকে ছাড়া আমি অসহায়’ গানটিও।

অনুপমের ভাষ্য, ‘বাচ্চু ভাইয়ের সৃষ্টি আজন্ম থেকে যাবে। মানুষটাকে আমি সামনাসামনি দেখেছি।’
নিঃসংশয়ে অনুপম জানান, ‘কলেজ জীবনে বাচ্চু ভাই, এলআরবির বড় উৎসাহ ছিল।’ অনুপমের ২০১৮ সাল খুব ভালো কেটেছে। তার প্রত্যাশা, নতুন বছরও ভালো কাটবে।

গ্রামীণফোন প্রেজেন্টস মনের মানুষ-ক্লাব এশিয়ায় আধা ঘণ্টার বেশি গেয়েছেন বাংলাদেশের তাহসান। শুনিয়েছেন নিজের প্রিয় গান, উত্তর দিয়েছেন নীলের প্রশ্নের।

কেমন ছিল দুই শিল্পীর সমন্বিত গানের অনুষ্ঠান, নীলের কণ্ঠে তৃপ্তি। বললেন, ‘আমার তো খুব ভালো লেগেছে। দুজনেই আমাদের সময়ের শ্রেষ্ঠ শিল্পী। দুজনেই প্রিয় শিল্পী। অনুপম রায়ের গান তো নিত্যসঙ্গী। আর তিনি মানুষ হিসেবে চমৎকার। আর শোটি এ কারণে খুব প্রাণবন্ত ছিল। সবাই বলেছেন, খুব ভালো অনুষ্ঠান হয়েছে। আর দুই বাংলার শিল্পীকে নিয়ে যে সমন্বিত অনুষ্ঠান, নিঃসন্দেহে গ্রামীণফোন আর আরটিভির অসাধারণ উদ্যোগ।’

এমএ