নবীজির (সা.) দানশীলতা

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

নবীজির (সা.) দানশীলতা

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:৫৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৩, ২০১৮

নবীজির (সা.) দানশীলতা

নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দানশীলতা, উদারতা ও বদান্যতায় ছিলেন সর্বোচ্চ উদাহরণ। জাবের বিন আব্দুল্লাহ (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন

ما سئل رسول الله صلى الله عليه وسلم شيئا قط فقال: لا

“রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর নিকট কিছু চাওয়া হলে তিনি না বলতেন না।”

আনাছ বিন মালেক (রা.) বলেন

ما سئل رسول الله صلى الله عليه وسلم شيئا إلا أعطاه، فسأله رجل فأعطاه غنما بين جبلين، فأتى الرجل قومه، فقال لهم: يا قوم أسلموا، فإن محمدا يعطي عطاء من لا يخاف الفاقة (الفقر) رواه مسلم

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর নিকট কিছু চাওয়া হলে তিনি দিয়ে দিতেন। এক ব্যক্তি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর নিকট চাইল, তিনি তাকে দুই পাল ছাগলের মধ্য থেকে এক পাল দিয়ে দিলেন, সে লোক নিজ গোত্রে এসে বলল, হে গোত্রের লোকেরা! তোমরা মুসলমান হয়ে যাও, কেননা “মোহাম্মদ এমন ব্যক্তির ন্যায় দান করে যে দারিদ্র্যের ভয় করে না” –সহিহ মুসলিম: ৪২৭৫

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর বদান্যতার ব্যাপারে আব্বাস (রা:) উক্তিই যথেষ্ট। তিনি বলেন

كان رسول الله صلى الله عليه وسلم أجود الناس، وكان أجود ما يكون في رمضان، حين يلقاه جبريل بالوحي، فيدارسه القرآن، فلرسول الله صلى الله عليه وسلم أجود بالخير من الريح المرسلة . رواه البخاري

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ছিলেন মানুষের মাঝে অধিকতর দানশীল। তিনি রমজান মাসে অধিক দান করতেন যখন জিবরাইল তাঁর নিকট ওহি নিয়ে আসতেন, তাঁকে কোরআন শিক্ষা দিতেন। নিঃসন্দেহে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মুক্ত বায়ুর চেয়ে অধিক দানশীল ছিলেন।

মুক্ত বায়ুর তুলনায় রাসূলের দানশীলতা অধিক এ তুলনার মর্মার্থ হচ্ছে, বায়ু মুক্ত হলেও তার যেমন কিছু কিছু দুর্বলতা থাকে, যেমন সে পৌঁছতে পারে না আবদ্ধ ঘরে, রাসূলের দানশীলতার তেমন কোন দুর্বলতা নেই। তার দানশীলতা পৌঁছে যেত সমাজের প্রতিটি রন্ধ্রে।

এমএফ/

আরও পড়ুন...
নবীজির সংসার : আদর্শ দাম্পত্যের দৃষ্টান্ত
নবী-জীবনে সত্যবাদিতা : কাফেরদের সাক্ষ্য ও আমাদের শিক্ষা

 

নবী ও সাহাবা-চরিত: আরও পড়ুন

আরও