পুলিশি বাঁধায় সড়কে দাঁড়াতে পারেনি বিএনপি

ঢাকা, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

পুলিশি বাঁধায় সড়কে দাঁড়াতে পারেনি বিএনপি

নীলফামারী প্রতিনিধি ৩:০৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯

পুলিশি বাঁধায় সড়কে দাঁড়াতে পারেনি বিএনপি

চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন করতে এসে পুলিশি বাধাঁর মুখে সড়কে দাড়াতে পারেনি নীলফামারী বিএনপি নেতা কর্মীরা। সারাদেশের কর্মসুচির অংশ হিসেবে জেলা শহরেও লিফলেট বিতরণ ও মানববন্ধনের আয়োজন করেছিলো দলটির জেলা শাখা। কর্মসূচি পালন করতে গিয়ে পুলিশের আঘাতে দু’জন আহত হয়েছে বলে দাবি করেছেন জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতা।

জানা গেছে, সকাল সাড়ে এগারটার দিকে দলীয় প্রধান বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে লিফলেট বিতরণ এবং মানববন্ধনের জন্য জড়ো হচ্ছিলেন স্থানীয় বিএনপির নেতা কর্মীরা। লিফলেট বিতরণ শুরু হলে প্রথমে বাঁধা দেয় পুলিশ। পরে সড়কে মানববন্ধন করতে চাইলে সেখানেও বাঁধা দেন আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। সেখানে ধাক্কাধাক্কি হয় পুলিশের সাথে বিএনপি নেতা কর্মীদের।

পরে পুলিশ বেস্টনির মধ্যে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন তারা। এ সময় বক্তব্য দেন- জেলা বিএনপির আহবায়ক আলমগীর সরকার, সদস্য সচিব জহুরুল আলম, সদর উপজেলা শখার সদস্য সচিব আখতারুজ্জামান জুয়েল, শহর কমিটির সদস্য সচিব মাসুদ চৌধুরী ও জেলা ছাত্রদলের সদস্য সচিব মারুফ পারভেজ প্রিন্স।

জেলা বিএনপির আহবায়ক আলমগীর সরকার অভিযোগ করে বলেন, ‘সারাদেশের কর্মসূচির অংশ হিসেবে নীলফামারীতেও মানববন্ধন এবং লিফলেট করা হচ্ছিলো। এসময় পুলিশ আমাদের উপর চড়াও হয়। পুলিশের আঘাতে আমাদের দু’জন কর্মী আহত হন। ’

তবে নীলফামারী থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোমিনুল ইসলাম মোমিন বলেন, কর্মসূচি পালনের ব্যাপারে পুলিশের কোন অনুমতি ছিলো না। এমনকি মৌখিকভাবেও বলাও হয়নি।  তথ্য ছিলো সড়কে দাড়িয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করার। এ কারণে জনজীবন স্বাভাবিক রাখতে আমরা সড়কে দাঁড়াতে দেইনি তাদের।

বিএনপির আহত দু’জন হলেন- জেলা তাঁতীদলের আহবায়ক শাহজাদা মুক্তি ও চড়াইখোলা ইউনিয়ন বিএনপি নেতা মোজাহার হোসেন।

এনএ/এসইউজে

 

রংপুর: আরও পড়ুন

আরও