ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের নিরাপত্তায় রেল পুলিশের বিশেষ ব্যবস্থা

ঢাকা, রবিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের নিরাপত্তায় রেল পুলিশের বিশেষ ব্যবস্থা

নুর আলম, নীলফামারী ৫:৫৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ০৯, ২০১৯

ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের নিরাপত্তায় রেল পুলিশের বিশেষ ব্যবস্থা

ফাইল ছবি

ঈদুল আজহায় ঘরমুখো ট্রেন যাত্রীদের নিরাপত্তায় বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলা পুলিশ।

যাত্রীদের নিরাপদ যাতায়াত, অজ্ঞান পার্টি, পকেটমার, চোরাচালান ও ছিনতাইকারীদের দৌরাত্ম্য ঠেকাতে নেয়া হয়েছে বিশেষ এই নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

ইতোমধ্যে পশ্চিম রেলপথে চলাচলকারী ট্রেন ও রেল স্টেশনে ২৭৬ জন পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

২৫ জুলাই থেকে শুরু হওয়া এ নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঈদের আগে ও পরে মোট ৩০ দিন বলবৎ থাকবে। অপরাধ দমনে এ তৎপরতা চলতি মাসের ২৪ আগস্ট পর্যন্ত বহাল থাকবে।

সৈয়দপুর রেলওয়ে পুলিশ সূত্র জানায়, পশ্চিমাঞ্চল রেলপথ ১২টি জেলার সঙ্গে যুক্ত। এ সব জেলার মধ্যে রয়েছে— নীলফামারী, রংপুর, লালমনিরহাট, গাইবান্ধা, দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, বগুড়া, জয়পুরহাট, নাটোর, রাজশাহী ও নওগাঁ। এসব জেলার মধ্যে ৩২টি জংশন ও রেলওয়ে স্টেশন রয়েছে।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে পশ্চিমাঞ্চল রেলপথ দিয়ে বিপুল সংখ্যক যাত্রী বিভিন্ন রেল স্টেশন দিয়ে নিজ নিজ গন্তব্যে যাতায়াত করবেন। ঘরমুখো ট্রেন যাত্রীদের নিরাপত্তায় ৬টি রেলওয়ে থানা ও ৬টি পুলিশ ফাঁড়িসহ গুরুত্বপূর্ণ সব রেল স্টেশনে ২৭৬ জন অতিরিক্ত সশস্ত্র পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

প্রতিটি ট্রেনে এবং রেলওয়ে স্টেশনে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তায় নিয়োজিত রয়েছেন রেলওয়ে পুলিশের এসব সদস্য।

সূত্র জানায়, ঈদ উপলক্ষে ৯ আগস্ট থেকে পশ্চিম রেলওয়ে বাড়তি ট্রেন সার্ভিস পরিচালনা করছে। এজন্য ২টি ঈদ স্পেশাল ট্রেন চালুসহ সকল আন্তঃনগর এক্সপ্রেস ট্রেনে অতিরিক্ত কোচ (বগি) নিয়ে চলাচল শুরু করেছে।

এছাড়াও ঢাকা, চট্টগ্রাম ও খুলনা অঞ্চল থেকেও অসংখ্য যাত্রী ট্রেনে ঘরে ফিরবেন।

এ সময় রেল স্টেশন ও বিনা টিকিটে রেল ভ্রমণকারী, চোরাচালান, অজ্ঞান পার্টি, পকেটমার, চুরি-ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপরাধী চক্র তৎপর হয়ে ওঠে।

এসব অপরাধী চক্রের তৎপরতা বন্ধে ওই পুলিশি নিরাপত্তা গ্রহণ করা হয়েছে।

এছাড়া প্রতিটি ট্রেনে পুলিশ স্কট যাত্রী নিরাপত্তায় দায়িত্ব পালন করছে। যাত্রীদের হয়রানিমূলক অভিযোগ গ্রহণ এবং পুলিশি সহায়তা পেতে প্রতিটি রেলওয়ে থানায় তথ্য কেন্দ্র চালু করা হয়েছে।

থানাগুলো হলো— সৈয়দপুর, দিনাজপুর, পার্বতীপুর, লালমনিরহাট, বোনারপাড়া ও সান্তাহার।

পুলিশ ফাঁড়ির মধ্যে রয়েছে- পার্বতীপুর, হিলি, রংপুর, কাউনিয়া, বালাসীঘাট ও বগুড়া।

এসব থানা ফাঁড়ি ও রেলওয়ে স্টেশনসহ ট্রেনের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা মনিটরিং করতে সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলা পুলিশের সদর দপ্তরে স্থাপন করা হয়েছে কন্ট্রোল রুম।

সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলা পুলিশের পুলিশ সুপার সিদ্দিকী তাঞ্জিলুর রহমান জানান, ঈদ যাত্রায় যাত্রীদের নিরাপত্তায় পুলিশের জনবল বৃদ্ধি করে রেলপথে নিরাপদ যাত্রা নিশ্চিত করা হয়েছে। এ নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঈদের পরে ১২ দিন পর্যন্ত বহাল থাকবে।

এছাড়া রেলপথের সঙ্গে যুক্ত ১২টি জেলার জেলা পুলিশ ও মেট্রোপলিটন পুলিশ দপ্তরকে বার্তা দিয়ে নিরাপত্তা গ্রহণে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে আটক অপরাধীদের শাস্তি দিতে এবং অবৈধ পণ্য পরিবহন জব্দ করতে ভ্রাম্যমাণ আদালত গঠন করা হয়েছে।

এসবি

 

রংপুর: আরও পড়ুন

আরও