কুড়িগ্রামে ছেলে ধরা আতঙ্ক, পুলিশের মাইকিং

ঢাকা, ১৪ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

কুড়িগ্রামে ছেলে ধরা আতঙ্ক, পুলিশের মাইকিং

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি ৫:৪৫ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৩, ২০১৯

কুড়িগ্রামে ছেলে ধরা আতঙ্ক, পুলিশের মাইকিং

সারা দেশের মতো কুড়িগ্রামের নয়টি উপজেলায় ছেলে ধরা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। কুড়িগ্রাম পুলিশের পক্ষে সর্বত্রে এটি ঠেকানো ও জনসচতেনতায় মাইকিং শুরু করা হয়েছে। সোমবার থেকে এখানে পুলিশের এই মাইকিং চলছে।

ফেসবুকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে ছেলে ধরার খবর দেখে ও শুনে কুড়িগ্রামে ছেলে ধরা আতঙ্কে এখানকার অভিভাবকরা তাদের ছেলে সন্তানের নিয়ে পড়ে দুশ্চিন্তায়। অনেক অভিভাবক তার স্কুল পড়ুয়া সন্তানদের ছেলে ধরার ভয়ে স্কুলে যেতে বন্ধ করে। ফলে এখানকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিশু শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কমে যায়।

 

 

আব্দুল জলিল (৬৫) নামের কুড়িগ্রামের এক বাসিন্দা জানান, আমার মেয়ের সন্তান আমার নাতি জিম বাবু আমার বাড়ি থেকে চর্তুথ শ্রেণিতে লেখাপড়া করে। মেয়ে-জামাই ঢাকা থেকে আমাকে ফোন করে বিভিন্ন স্থানে ছোট ছোট শিশুদের গলা কেটে নিচ্ছে ছেলে ধরার দল। এ বিষয়টি অবগত করলে আমি চিন্তাগ্রস্ত হয়ে পড়ি। তারা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়া আমার নাতিকে স্কুলে না পাঠানোর অনুরোধ করলে আমি আমার নাকিকে স্কুলে পাঠা বন্ধ করি।

স্থানীয় গৃহিনী মরিয়ম পারভীন জানান, আমার একমাত্র মেয়ে নার্সারিতে পড়ে। আমি ছেলে ধরার ঘটনা বিভিন্ন  ফেসবুকে দেখতে পেয়ে ও এলাকার স্থানে শুনতে পেয়ে আতঙ্কগ্রস্ত হয়েছি। আমার মেয়েকে স্কুলে আনা নেওয়া করছে তার দাদুভাই। তিনি র্সাবক্ষণিক তাকে নজরদারী করছে। আমি বাড়িতে মেয়েকে বাহিরে একাই বের হতে দিচ্ছি না।

এই পরিস্থিতিতে কুড়িগ্রামের নয়টি উপজেলায় কুড়িগ্রাম পুলিশ ছেলে ধরার গুজবে কান না দেয়ার জন্য ও ছেলে ধরা সন্দেহে হলে সাথে সাথে নিকটস্থ পুলিশকে জানানোর আহবান করে সোমবার থেকে সর্বত্রে মাইকিং শুরু করেছে।

মাইকিংয়ে বলা হচ্ছে, ছেলে ধরা হিসেবে কাউকে সন্দেহ হলে সাথে নিকটস্থ থানা পুলিশকে খবরদিন। আইন হাতে তুলে কাউকে গণপিটুনী দিবেন না।

এ ব্যাপারে কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান জানান, ছেলে ধরা গুজব। ছেলে ধরার গুজবে কান না দিতে ও এ সংক্রান্ত ঘটনা যাতে অপ্রীতিকর ঘটনায় পরিণত না হয় এ জন্য জনগণকে পুলিশের সহযোগিতা দিতে জনসচেতনতায় কুড়িগ্রামের সকল থানায় মাইকং করা হচ্ছে।

এআরই

 

রংপুর: আরও পড়ুন

আরও