তিস্তার পানি কমলেও পানিবন্দি মানুষের দুর্ভোগ চরমে

ঢাকা, ২১ আগস্ট, ২০১৯ | 2 0 1

তিস্তার পানি কমলেও পানিবন্দি মানুষের দুর্ভোগ চরমে

লালমনিরহাট প্রতিনিধি ১:১৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০১৯

তিস্তার পানি কমলেও পানিবন্দি মানুষের দুর্ভোগ চরমে

ভারী বর্ষণ ও ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢল কিছুটা কমে যাওয়ায় লালমনিরহাটে বন্যা পরিস্থিতির সার্বিক সামান্য উন্নতি হয়েছে। গত কয়েকদিন থেকে বিপদসীমার ওপর দিয়ে তিস্তা নদীর পানি প্রবাহিত হলেও সোমবার সকাল ৬টা থেকে তিস্তা ব্যারাজের দোয়ানী পয়েন্টে পানি কমে বিপদসীমার ৪৫ সে. মি. নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়।

তবে বন্যাদুর্গত এলাকাগুলোতে পানিবন্দি মানুষের দুর্ভোগ কমেনি। বসতবাড়ির চারপাশে এখনও পানি থাকায় পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছে পাঁচ উপজেলার নদীসংলগ্ন প্রায় ৪০ হাজার মানুষ।

বন্যা দুর্গতরা জানান, খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দিয়েছে। গবাদি পশু-পাখি নিয়েও বিপাকে পড়েছেন তারা। পানিবাহিত রোগের প্রার্দুভাব দেখা দিলেও মিলছে না চিকিৎসা সেবা। যে ত্রাণ বরাদ্দ হিসেবে পেয়েছেন তা প্রয়োজনের তুলনায় একেবারে কম বলেও অভিযোগ রয়েছে তাদের।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বর্তমানে ৫টি উপজেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির সামান্য উন্নতি হলেও বন্যাকবলিত এলাকার মানুষজন চরম ভোগান্তিতে রয়েছে। পানি কমলেও বন্যাকবলিত এলাকার শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানগুলোতে এখনও পাঠদান বন্ধ রয়েছে। ফসলি জমি, রাস্তা-ঘাট এখনো পানির নিচে রয়েছে দুর্গত এলাকায়। জেলার আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে বেশ কিছু পানিবন্দি মানুষের অবস্থান দেখা যায়।

জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা আলী হায়দার জানান, জেলার ৫টি উপজেলার বন্যাকবলিত মানুষদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত রয়েছে।

এআর/আরপি

 

রংপুর: আরও পড়ুন

আরও