প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণ ধামাচাপার চেষ্টা, ধর্ষকসহ গ্রেফতার ২

ঢাকা, ১৯ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণ ধামাচাপার চেষ্টা, ধর্ষকসহ গ্রেফতার ২

দিনাজপুর প্রতিনিধি ৮:০০ অপরাহ্ণ, জুলাই ১১, ২০১৯

প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণ ধামাচাপার চেষ্টা, ধর্ষকসহ গ্রেফতার ২

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে চতুর্থ শ্রেণির (১১) এক প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণের ঘটনা শালিসের নামে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টার অভিযোগে ধর্ষক মেহেদুল ইসলামসহ দুই জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার ফুলবাড়ী থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেছেন।

গ্রেফতারকৃত ধর্ষক মেহেদুল ইসলাম (৪৬) রামভদ্রপুর আবাসনের বাসিন্দা জহির উদ্দিনের ছেলে ও ধর্ষকের সহযোগী সুজন (৩২) ফুলবাড়ী উপজেলার রামভদ্রপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে।

জানা যায়, ফুলবাড়ী উপজেলার রামভদ্রপুর আবাসন আবাসনের বাসীন্দা রিকশা-ভ্যান চালককের চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ুয়া প্রতিবন্ধী মেয়ে গত ৩ জুলাই দুপুরে দোকানে জুস নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে একই আবাসনের বাসিন্দা দুই স্ত্রীর স্বামী মেহেদুল ইসলাম (৩৫) শিশুটিকে জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করে। এটি জানাজানি হলে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার জন্য শুরু হয় শিশুর বাবা-মায়ের ওপর বিভিন্ন ধরনের চাপসহ হুমকি।

এক পর্যায়ে শালিস বৈঠকের মাধ্যমে ১৪ হাজার টাকায় ধর্ষণ ঘটনাটি মীমাংসা করতে বাধ্য করে ঘটনাটিকে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করা হয়। শুধু তাই নয়, শালিসে অভিযুক্ত ধর্ষকের কাছে ১৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হলেও, ধর্ষিতা ওই শিশুর বাবাকে দেয়া হয় মাত্র ৭ হাজার টাকা। বাকি ৭ হাজার টাকা ভাগবাটোয়ারা করে নেয় শালিসকারীরা। ঘটনাটি প্রকাশ হলে নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। ফলে বৃহস্পতিবার ধর্ষক মেহেদুল ও তার সহযোগী শালিসকারী সুজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ধর্ষিতার বাবা জানান, এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যাতে ভবিষ্যতে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে যেন কোনো প্রকার আইনের আশ্রয় নিতে না পারি এবং বিষয়টি যেন কারো কাছে ফাঁস না করি সেজন্য ৩০০ টাকা মূল্যের সাদা স্ট্যাম্পে তার স্বাক্ষর নিয়েছে শালিসকারীরা।

ফুলবাড়ী থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) ফকরুল ইসলাম জানান, ঘটনাটি জানার পরেই ধর্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ধর্ষিতার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এইচআর

 

রংপুর: আরও পড়ুন

আরও