চলন্ত বাইকে দুই বন্ধুকে হত্যা করেন তরিকুল: পুলিশ

ঢাকা, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

চলন্ত বাইকে দুই বন্ধুকে হত্যা করেন তরিকুল: পুলিশ

একরাম তালুকদার, দিনাজপুর ৬:২৮ অপরাহ্ণ, জুন ১৫, ২০১৯

চলন্ত বাইকে দুই বন্ধুকে হত্যা করেন তরিকুল: পুলিশ

দিনাজপুরের বীরগঞ্জে চলন্ত মোটরসাইকেলে দুই বন্ধুকে গলা কেটে হত্যা করেন তরিকুল ইসলাম। তারা তিনজনই মাদক ব্যবসায়ী।

শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় দিনাজপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানান পুলিশ সুপার সৈয়দ আবু সায়েম।

উল্লেখ্য, গত ৩০ মে বীরগঞ্জ উপজেলার দেবীপুর গ্রামের বালাপাড়ায় হানিফুর রহমান (২৪) ও বিপ্লব চন্দ্র রায়ের (২৩) গলা কাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এই ঘটনায় জড়িত তাদেরই বন্ধু তরিকুল ইসলাম (২৭)।

তিনি বীরগঞ্জ উপজেলার ঝাড়বাড়ি শতগ্রাম (পালাপাড়া) এলাকার গিয়াস উদ্দিনের ছেলে।

হত্যার কারণ হিসেবে ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার জানান, হানিফুর রহমান ১৮ হাজার টাকা ধার নেন তরিকুল ইসলামের কাছ থেকে। এছাড়া হানিফুর রহমান ও বিপ্লব কুমার মাঝে মধ্যে তরিকুলের কাছে নেশার টাকা দাবি করতেন। এই ক্ষোভ ও পাওনা টাকার জেরেই এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটিয়েছে তরিকুল।

পুলিশ সুপার জানান, ২৯ মে রাতে ইয়াবা খাওয়ার উদ্দেশ্যে তিন বন্ধু মোটরসাইকেলযোগে রওনা দেন। তারা উপজেলার দেবীপুর গ্রামের বালাপাড়ায় পৌঁছালে তরিকুল পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী চাকু দিয়ে প্রথমে বিপ্লবের গলায় টান দেন। কিছু বুঝে ওঠার আগেই চালক হানিফুর রহমানের গলায়ও চাকু দিয়ে কয়েকটি টান দেন। তখন মোটরসাইকেলসহ ৩ জনই মাটিতে পড়ে যায়। এসময় তরিকুল মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যান।

পুলিশ সুপার জানান, গত ১৩ জুন রাত আড়াইটার দিকে বীরগঞ্জ শালবাগান এলাকা থেকে তরিকুল ইসলামকে আটক করা হয়। পরে তার দেয়া তথ্যমতে ঘটনায় ব্যবহৃত চাকু ও মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

এই ঘটনায় নিহত হানিফুর রহমানের বড় ভাই হালিমুজ্জামান হালিম বাদী হয়ে বীরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এসবি

 

রংপুর: আরও পড়ুন

আরও