নরসিংদীতে পুলিশ-গ্রামবাসীর সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ ২ (ভিডিও)

ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

নরসিংদীতে পুলিশ-গ্রামবাসীর সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ ২ (ভিডিও)

নরসিংদী প্রতিনিধি ৩:২৬ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৮

নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার চৈত্যনায় পুলিশ ও গ্রামবাসীর মধ্যে দাওয়া-পাল্টা দাওয়া এবং গুলিবর্ষণের ঘটনায় দুই গ্রামবাসী গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এ ঘটনায় দুই পুলিশ কনস্টেবলসহ মোট চারজন আহত হয়েছে। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলার চৈতনায় এ ঘটনা ঘটে।

গুলিবিদ্ধরা হলেন, চৈতনা এলাকার খোরশেদ মিয়ার ছেলে অহিদউল্লা (৩০), বাচ্চু মিয়ার ছেলে মোহন (৪০)। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন, ইটাখোলা পুলিশ ফাঁড়ির কনস্টেবল মাহাবুব (৩২) এবং বিল্লাল হোসেন (৩১)।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে কয়েকজন পুলিশ সদস্য চৈতনা বাজারে হকার উচ্ছেদের নামে তাদের কাছ থেকে চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে পুলিশ গ্রেফতারের ভয় দেখালে এক পর্যায়ে তাদের সাথে পুলিশের হাতাহাতি শুরু হয়। এ সময় পুলিশ নিরুপায় হয়ে হকারদের ওপর গুলিবর্ষণ শুরু করে এবং হকার অহিদ ও মোহন গুলিবিদ্ধ হয়।

এদিকে, পুলিশের গুলিতে অহিদ ও মোহন আহত হলে এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ হয়ে পুলিশের ওপর চড়াও হয়। এ সময় ইট-পাটকেলের আঘাতে ওই দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়।

গুলিবিদ্ধসহ আহতদের উদ্ধার করে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাবার পরামর্শ দেন।

এদিকে, ঘটনার পর পর আহতদের দেখতে ও তাদের চিকিৎসার খোঁজখবর নিতে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে ছুটে যান স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলাম মোল্লা ও শিবপুর উপজেলা চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম মৃধা।

ইটাখোলা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (উপ-পরিদর্শক) হাফিজুল রহমান ঘটনা নিশ্চিত করে বলেন, মহাসড়ক থেকে হকার উচ্ছেদ করতে চৈতনা এলাকায় অভিযান চালাতে গেলে পুলিশের কাছ থেকে শর্টগান ছিনিয়ে নিলে পুলিশ বাধ্য হয় গুলি ছুড়তে। এ ঘটনায় আমাদের দুইজন পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছে।

আরআই/আরপি