নীলফামারীতে ভিজিএফ’র ২৪৬ বস্তা চাল আটক

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট ২০১৮ | ১ ভাদ্র ১৪২৫

নীলফামারীতে ভিজিএফ’র ২৪৬ বস্তা চাল আটক

নীলফামারী প্রতিনিধি ৩:৫২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১০, ২০১৮

print
নীলফামারীতে ভিজিএফ’র ২৪৬ বস্তা চাল আটক

নীলফামারীর ডোমারে ভিজিএফ’র ২৪৬ বস্তা চাল আটক করা হয়েছে বৃহস্পতিবার রাতে। উপজেলার বোড়াগাড়ি বাজার এলাকা থেকে ট্রাক্টরযোগে নিয়ে যাওয়ার সময় এলাকাবাসী আটক করে পুলিশে খবর দেয়। ট্রাক্টরসহ চাল ডোমার থানায় রাখা হয়েছে।

আটক চালের বস্তাগুলো কোন ইউনিয়ন পরিষদের তা নিশ্চিত হওয়া না গেলেও জলঢাকা উপজেলার ধর্মপাল ইউনিয়নের বলে অনেকে বলছেন।

স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বোড়াগাড়ি বাজার এলাকা থেকে ট্রাক্টরটি আটক করে ডোমার থানায় খবর দেয়া হয়। ট্রাক্টরে ২৪৬ বস্তা চাল ছিল। ভিজিএফ’র চালের ট্রাক্টরটি পাচাঁরের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল বলে অভিযোগ তাদের।

ধর্মপাল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আপেল মাসুদ বলেন, এলএসডি গোডাউন হতে চেয়ারম্যান যখন ভিজিএফের চাল উত্তোলন করে এলাকাবাসী তা অনুসরণ করে। এতে দেখা যায় বৃহস্পতিবার রাতে দুটি চালের ট্রলি ইউনিয়ন পরিষদে না নিয়ে পার্শ্ববর্তী ডোমার উপজেলায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। আমরা বোড়াগাড়ি হাটে ট্রাক্টরটি আটক করে পুলিশে খবর দেই। এ সময় চালক ও হেলপার পালিয়ে যায়। আরেকটি ট্রাক্টর যোগেও চাল পাচাঁর করা হয়েছে বলে অভিযোগ তার।

শুক্রবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত জলঢাকা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা আবু তাহের মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবুল আসাদ মিয়া ধর্মপাল ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে চালের গোডাউন সিলগালা করে দেন।

সূত্র জানায়, আটক ২৪৬ বস্তা চাল প্রতি বস্তায় ৩০ কেজি করে ছিল। এতে চালের পরিমান দাঁড়ায় ৭ দশমিক ৩৮ মেট্রিকটন। যার বাজার মূল্য দুই লাখ ৮৯ হাজার ২৯৬ টাকা।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবুল আসাদ মিয়া জানান, ধর্মপাল ইউনিয়নের জন্য ৬ হাজার ৩৭৫ কার্ডের বিপরীতে ১২৭ দশমিক ৫০০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়। বুধবার ও বৃহস্পতিবার দু’দিনে ইউপি চেয়ারম্যান চাল জলঢাকা খাদ্যগুদাম হতে উত্তোলন করেন।

অভিযোগ অস্বীকার করে ধর্মপাল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জামিনুর রহমান বলেন, বৃহস্পতিবার ১৪৭৫ কার্ডের বিপরীতে চাল বিতরণ করেন ২৯ দশমিক ৫ মেট্রিক টন। আটক চাল আমার নয়।

ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোকছেদ আলী জানান, বৃহস্পতিবার রাতে বোড়াগাড়ি বাজার থেকে ট্রাক্টরটি আটক করে থানা নিয়ে আসা হয়েছে। সেখানে ২৪৬ বস্তা চাল পাওয়া গেছে। জলঢাকা উপজেলা প্রশাসন সেটি তদন্ত করে দেখছে।

জানতে চাইলে জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা আবু তাহের মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান বলেন, ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্তে প্রমাণিত হলে সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা করা হবে।

এনএ/বিএইচ/

 
.


আলোচিত সংবাদ