ঢাকাসহ তিন জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

ঢাকা, রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫

ঢাকাসহ তিন জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:২৯ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১০, ২০১৮

ঢাকাসহ তিন জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

রাজধানীসহ ৩ জেলায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে পৃথক বন্দুকযুদ্ধে ৩ জন নিহতের খবর পাওয়া গেছে। সোমবার দিবাগত রাতে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও রংপুরে এসব ঘটনা ঘটে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দাবি নিহতরা মাদককারবারি ও ডাকাত দলের সদস্য। আমাদের প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর—

রাজধানী

রাজধানীর মিরপুরের শাহআলী এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক যুবক নিহত হয়েছে। তার নাম পাইলট বাবু। বয়স ৩৫ বছর। তিনি একজন মাদক ব্যবসায়ী বলে দাবি করেছে র‌্যাব। মঙ্গলবার ভোররাতে এ ‘বন্দুকযুদ্ধে’র ঘটনা ঘটে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, র‌্যাব-৪ এর ডিএডি মিজান গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাইলট বাবুকে ভোর ৪টার দিকে হাসপাতালে নিয়ে যান। পরে ৫টার দিকে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

র‌্যাব সূত্রে জানা যায়, সোমবার দিবাগত গভীর রাতে র‌্যাব-৪ এর একটি দল মাদকবিরোধী অভিযানে যায়। এ সময় শাহআলী থানাধীন তামান্না পার্ক সংলগ্ন এলাকায় মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে র‌্যাবের গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। গোলাগুলির এক পর্যায়ে অন্যরা পালিয়ে গেলেও পাইলট বাবুকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

নারায়ণগঞ্জ

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রাজধানীর জেনেভা ক্যাম্পের মো. নাদিম হোসেন ওরফে পঁচিশ (৩৫) নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার ভোরে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সিনিয়র সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান জানান, ভোরে নারায়ণঞ্জের রূপগঞ্জ এলাকায় মাদক কারবারিদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। সেখানে জেনেভা ক্যাম্পের তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক কারবারি নাদিম ওরফে পঁচিশ নিহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র-গুলিসহ বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য জব্দ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

র‍্যাবের দাবি, মো. নাদিম ওরফে পঁচিশ বিভিন্ন সামাজিক কাজকর্মের আড়ালে মাদক কারবার করতেন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর শীর্ষ মাদক কারবারির তালিকায়ও তার নাম রয়েছে।

এর আগে নাদিম আত্মসমর্পণ করে মাদক কারবার ছেড়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও কারাগার থেকে বেরিয়ে আবার পুরোনো কারবারে ফিরে যান।

জেনেভা ক্যাম্পের স্থানীয়দের বরাত দিয়ে সূত্র জানায়, মোহাম্মদপুর জেনেভা ক্যাম্পেই পঁচিশের জন্ম। ছোটবেলায় তার মা-বাবা মারা যান। পরে জেনেভা ক্যাম্প এলাকার একটি হোটেলে ২৫ টাকা বেতনে কাজ করতেন তিনি। তখন ২৫ টাকায় গাঁজা বিক্রি শুরু করেন। আর এ কারণে স্থানীয় ভাবে তিনি ‘পঁচিশ’ নামে পরিচয় পেতে শুরু করেন।

জেনেভা ক্যাম্পের মাদক কারবারিদের প্রধান নেতা হিসেবে তালিকাভুক্ত ইশতিয়াক। পঁচিশ ইশতিয়াকের শিষ্য বলেও জানা জানিয়েছে সূত্রটি।

রংপুর 

রংপুর অফিস জানান, রংপুর জেলা পুলিশের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ‘ডাকাত’ সদস্য নিহত হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রংপুর মহানগরীর হাজিরহাট এলাকায় মঙ্গলবার রাত ৩টার দিকে।

ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় তৈরি পিস্তল ও দু’টি দেশীয় ছোরা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার রাত ৩টার দিকে রংপুর মহানগরীর হাজিরহাট পাগলাপীরগামী সড়কের পাশে মেজরের গলির তেলির ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় একদল ডাকাত ডাকাতির উদ্দেশ্যে সমবেত হচ্ছিল।

এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়তে থাকে। পুলিশও নিজেদের রক্ষার্থে পাল্টা ৫ থেকে ৬ রাউন্ড রাবার বুলেট ছোঁড়ে।

এ সময় ঘটনাস্থলেই বেলাল হোসেন (৪০) নিহত হন। এ ঘটনায় দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ ৮ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

নিহত ডাকাত বেলাল হোসেন উত্তম বেতার পাড়ার মৃত ইসহাক ওরফে আতার ছেলে।

রংপুর কোতোয়ালি থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মোখতারুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, নিহত বেলালের বিরুদ্ধে ডাকাতি, হত্যা ও ছিনতাইসহ ১৮টি মামলা আছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় পিস্তল ও দুটি ছোরা উদ্ধার করা হয়েছে।

এপি/এসভি/বিএইচ/আরপি/এফএম

আরও পড়ুন...
রাজধানীতে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত
জেনেভা ক্যাম্পের নাদিম নারায়ণগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত
রংপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত’ নিহত