বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর ব্যবহারের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে নেপালের রাষ্ট্রদূত

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ | ২৯ কার্তিক ১৪২৫

বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর ব্যবহারের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে নেপালের রাষ্ট্রদূত

পঞ্চগড় প্রতিনিধি ৫:২০ অপরাহ্ণ, মে ১৩, ২০১৮

বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর ব্যবহারের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে নেপালের রাষ্ট্রদূত

চট্টগ্রাম ও মংলা সমুদ্রবন্দর ব্যবহার করে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর দিয়ে পণ্য আমদানির সম্ভাব্যতা যাচাই করতে স্থলবন্দরটি পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত নেপালের রাষ্ট্রদূত প্রফেসর ডা. চোপলাল ভুসালসহ ১৫ সদস্যের প্রতিনিধি দল।

পরিদর্শন শেষে রোববার দুপুরে পঞ্চগড় জেলা পরিষদ কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে পঞ্চগড়ে চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন তারা।

এতে নেপালের রাষ্ট্রদূত জানান, নেপাল বহির্বিশ্ব থেকে পণ্য আমদানি করতে ভারতের কলকাতাসহ দুটি সমুদ্রবন্দর ব্যবহার করে। কিন্তু ওই দুটি বন্দর দিয়ে পণ্য আমদানিতে খরচ বেশির পাশাপাশি সময় অনেক বেশি লেগে যায়।



এজন্য তারা বাংলাদেশের চট্টগ্রাম ও মংলা সমুদ্রবন্দর ব্যবহার করে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর দিয়ে বহির্বিশ্ব থেকে পণ্য আমদানির কথা চিন্তা করছেন বলে জানান তিনি।

নেপালি রাষ্ট্রদূত বলেন, এতে সড়ক পথে খরচ সাশ্রয়ের পাশাপাশি ভারতের সমুদ্রবন্দরের তুলনায় অনেক কম সময়েই পণ্য আমদানি করা সম্ভব বলে মনে করছেন তারা।

মতবিনিময় সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঢাকার নেপালি দূতাবাসের ডেপুটি চিফ অব মিশন ধন বহাদুর ওলী, বাংলাবান্ধা কাস্টমসের সহকারী কমিশনার আবদুস সাত্তার, পঞ্চগড় চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি আবদুল হান্নান শেখ, ঠাকুরগাঁও চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি হাবিবুল ইসলাম বাবলু, আমদানি-রফতানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মেহেদি হাসান খান বাবলা, সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রেজাউল করিম রেজা, নেপালের বীরগঞ্জ চেম্বারের সভাপতি অশোক কুমার আগারওয়াল। 

কেএ/এমএসআই