নওগাঁ গৃহবধুকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

নওগাঁ গৃহবধুকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

নওগাঁ প্রতিনিধি ১২:৪৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২০, ২০১৯

নওগাঁ গৃহবধুকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

নওগাঁর সাপাহারে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। তবে নিহত গৃহবধুর স্বামী বিষয়টিকে ডাকাতির ঘটনা বলে প্রচারণার চেষ্টা করছেন। শনিবার দিবাগত রাতে উপজেলার বিদ্যানন্দী বাহাপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এই ব্যাপারে নিহতের পক্ষ থেকে কোন মামলা রুজু না হলেও পুলিশের পক্ষ থেকে একটি হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গিয়েছে।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, শনিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে বাহাপুর গ্রামের মোজাফফর রহমানের ছেলে নজরুল ইসলামকে (৩২) মুখে কসটেপ আটানো ও হাত দুটি পিছনের দিকে গামছা দিয়ে বাধা অবস্থায় দেখতে পায় এলাকার মানুষ। এলাকার লোকজন তার মুখের টেপ ও বাঁধন খুললে তার বাড়িতে ডাকাত দল প্রবেশ করেছে বলে জানান তিনি। ডাকাতরা তার ছেলেকে কুপের মধ্যে ফেলে দিতে চায় বলে দ্রুত তাদের সহযোগিতা কামনা করে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। গ্রামের লোকজন তার বাসায় ছুটে এসে বিছানায় তার স্ত্রী রুমীকে (২৫) অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। তাৎক্ষণিক ভাবে রুমি ও তার স্বামী নজরুল ইসলামকে সেখান থেকে উদ্ধার করে রাত আড়াইটার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে ভর্তি করা হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক রুমীকে মৃত ঘোষনা করেন এবং নিহতের গলায় শ্বাসরোধ করে হত্যার চিহ্ন দেখতে পান।

নিহত গৃহবধু স্বামী নজরুল ইসলাম জানান, রাত দেড়টার দিকে সে বাড়ীর বাথরুম থেকে বেরুনোর সময় তাকে অপরিচিত ৩ জন লোক ঝাপটে ধরে এবং তাকে তার ঘরের মধ্যে নিয়ে গিয়ে বাহিরের দরজার চাবি আদায় করে। বাড়ীর দরজায় তালা ছিল তারা কি করে বাসায় প্রবেশ করল এ প্রশ্নের জবাবে সে কিছুই বলতে পারে না। এরপর ডাকাতরা চাবি দিয়ে বাড়ির সদর জরজা খুললে আরো ৬ জন লোক বাহির থেকে বাসায় প্রবেশ করে এবং তাকে তার শয়ন ঘরের মধ্যে নিয়ে গিয়ে গামছা দিয়ে দুহাত বেঁধে ফেলে ও মুখে কসটেপ এটে দেয়। এরপর আবারো তাকে ঘর হতে বের করে নিয়ে বাড়ির আঙ্গিনায় যায়। এ সময় সে ডাকাত দলের হাত থেকে ফসকে সদর দরজা দিয়ে বেরিয়ে প্রতিবেশীদের ডাক দেয়। এর মধ্যে ঘরে ডাকাত দল কি করল এবং কি সম্পদ লুট করল তা স্বামী নজরুলের জানা নেই বলেও জানান তিনি।

নিহত গৃহবধুর পিতা রমজান আলী ও বড় চাচা নুর মোহাম্মাদের দাবি, তাদের মেয়েকে জামাই নজরুল হত্যা করে ডাকাতির নাটক সাজিয়েছে।

তবে পুলিশ বলছে এটি কোন চুরি কিংবা ডাকাতির ঘটনা নয়। চুরি বা ডাকাতি হলে তারা ঘরের মধ্যে থাকা নগদ টাকা পয়সা, গহনা কিছুই নেয়নি সবই ঠিক মত অবস্থায় রয়েছে। একটি জিনিসপত্র ও খোয়া যায়নি কিংবা কোন দরজা জানালাতেও কোন চিহ্ন নেই সবকিছু অক্ষত রয়েছে। তাদের স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কোন ঘনটা থাকতে পারে বলেও পুলিশ ধারণা করছে।

সাপাহার থানার ওসি আব্দুল হাই জানিয়েছেন, রোববার সকাল পর্যন্ত কোন মামলা দায়ের হয়নি। তবে হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান ওসি আব্দুল হাই।

এমকে / বেএআর

 

রাজশাহী: আরও পড়ুন

আরও