রাজশাহীতে কমতে শুরু করেছে পদ্মার পানি

ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯ | ২৯ আশ্বিন ১৪২৬

রাজশাহীতে কমতে শুরু করেছে পদ্মার পানি

রাজশাহী ব্যুরো : ২:৫৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০৫, ২০১৯

রাজশাহীতে কমতে শুরু করেছে পদ্মার পানি

হঠাৎ করে ফারাক্কা বাঁধের সবগুলো গেট খুলে দেওয়ার কারনে পদ্মা নদীতে পানি বাড়তে শুরু করেছিল। রাজশাহীতে বিপদসীমা ছুঁই ছুঁই করেও শেষ পর্যন্ত কমতে শুরু করেছে পদ্মার পানি। অব্যাহত পানি বৃদ্ধিতে পদ্মার পানি বিপদসীমার কাছাকাছি ১৮ দশমিক ৪৮ সেন্টিমিটারে উঠলেও তা এখন ১৮ দশমিক ১৫ সেন্টিমিটারে নেমে দাঁড়িয়েছে। শনিবার সকালে পানির উচ্চতা এই পরিসংখ্যানে দাঁড়ায়।

পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, আর পানি বাড়ার কোন সম্ভাবনা নেই। তবে জলমগ্ন হয়ে পড়া এলাকাগুলোতে এখনো পানি রয়েছে। যার কারনে বন্যাপিড়িত মানুষেরা দুর্ভোগের মধ্যে রয়েছেন।

পানির তোড়ে নদীতে এখনও প্রবল স্রোতের তাণ্ডব রয়েছে। আছড়ে পড়ছে পাড়ে। এ কারনে এখনও হুমকির মুখে আছে শহর রক্ষা টি-বাঁধসহ সংলগ্ন এলাকা। পরিস্থিতি মোকাবেলায় বুধবার সকাল থেকে বাঁধ ঘিরে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। তবে বৃহস্পতিবার থেকে নদীর পানি কমতে থাকায় ভয়াবহ বন্যার কবল থেকে রক্ষা পায় জেলার বিভিন্ন এলাকা।

রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের গেজ রিডার এনামুল হক জানান, গেলো ১৭ বছরে পদ্মার পানি মাত্র দুইবার বিপদসীমা (১৮ দশমিক ৫০) অতিক্রম করেছে। এর মধ্যে ২০০৪ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত টানা ৮ বছর রাজশাহীতে পদ্মার পানি বিপদসীমা অতিক্রম করেনি। কেবলমাত্র ২০০৩ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর পদ্মার সর্বোচ্চ উচ্চতা ছিল ১৮ দশমিক ৮৫ মিটার। এছাড়া ২০১৩ সালের ৭ সেপ্টেম্বর পদ্মার উচ্চতা দাঁড়িয়েছিল ১৮ দশমিক ৭০ মিটারে। এরপর পানি বাড়লেও ওইসব রেকর্ড ভাঙেনি। শনিবার সকালে পানির উচ্চতা দাঁড়ায় ১৮ দশমিক ১৫ সেন্টিমিটার।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সৈয়দ সাহিদুল আলম জানান, নদীর প্রবল স্রোতে কয়েক যুগ আগের টি-বাঁধটি কিছুটা দেবে গেছে। তাই বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলে তা রক্ষার চেষ্টা চলছে। এর আগে ২০১৬ সালের ২৮ আগস্ট এ বাঁধে ফাটল দেখা দেয়। পরে জিও ব্যাগ ফেলে সে ফাটল ঠেকান হয়।

বিএইচ/জেডএস/

 

রাজশাহী: আরও পড়ুন

আরও