বিএমডিএ’র আট কর্মকর্তার স্ট্যান্ডরিলিজ বাতিল

ঢাকা, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | 2 0 1

বিএমডিএ’র আট কর্মকর্তার স্ট্যান্ডরিলিজ বাতিল

রাজশাহী ব্যুরো ৮:৪১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০৮, ২০১৯

বিএমডিএ’র আট কর্মকর্তার স্ট্যান্ডরিলিজ বাতিল

বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিএমডিএ’র) আট প্রকৌশলীর স্ট্যান্ডরিলিজ আদেশ ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই বাতিল করা হয়েছে। কৃষিমন্ত্রীর নির্দেশে বদলির এই আদেশ স্থগিত করেছে কর্তৃপক্ষ।

রোববার দুপুরে হঠাৎ এই আদেশ প্রত্যাহার করা হয় বলে জানা গেছে।

সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রশিদ বলেন, বিএমডিএ’র চেয়ারম্যানের নির্দেশে বৃহস্পতিবার বিকালে ওই আট কর্মকর্তাকে প্রশাসনিক কারণে স্ট্যান্ডরিলিজের আদেশ দেয়া হয়েছিল। কিন্তু উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশেই আদেশ রোববার স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। স্ট্যান্ডরিলিজের কারণ দুর্নীতি নয়, প্রশাসনিক।

বদলিকৃত কর্মকর্তারা হলেন- বিএমডিএ’র প্রধান কার্যালয়ের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শামসুল হোদা, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ড. আবুল কাশেম, নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ, নির্বাহী প্রকৌশলী (চলতি দায়িত্ব) তরিকুল ইসলাম, ঠাকুরগাঁও সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর আলম খান, জয়পুরহাট রিজিয়নের নির্বাহী প্রকৌশলী সুমন্ত কুমার বসাক, রাজশাহীর পবা জোনের উপ-সহকারী প্রকৌশলী রাহাত পারভেজ ও দুর্গাপুর জোনের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. শামসুল আলম।

নির্বাহী পরিচালক জানান, বৃহস্পতিবার রাজশাহীতে বিএমডিএ’র প্রধান কার্যালয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের কর্মকর্তারা অভিযোগ তদন্তে আসেন। এরপর ওইদিনই বিকালে বিএমডিএ’র চেয়ারম্যান ড. আকরাম হোসেন চৌধুরী আট কর্মকর্তাকে স্ট্যান্ডরিলিজের আদেশ দেন।

রোববারের মধ্যে তাদেরকে নতুন কর্মস্থলে যোগদান করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগগুলোর মধ্যে রয়েছে, ২০১২ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত অডিট আপত্তি, কোটি টাকা ব্যয়ে সরকারি প্রকৌশলী ভবন নির্মাণ করেও সেখানে প্রকৌশলী না থাকা, পিপিআর অমান্য করে খন্ড খন্ড আকারে প্রয়োজনীয় সরঞ্জমাদি ক্রয়ের মাধ্যমে সরকারি অর্থের ক্ষতি , গোদাগাড়ীতে প্রায় ৫০ লাখ টাকার হিসেব জালিয়াতি, চলমান প্রকল্পে অনিয়ম, সরকারি পরিপত্র অমান্য করে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বেতন স্কেল প্রদান ও পল্লী বিদ্যুতের অবৈধ ব্যবহার।

বিএইচ/পিএসএস

 

রাজশাহী: আরও পড়ুন

আরও