ভারতে আটক শাহিনের বাড়ি রাজশাহীতে

ঢাকা, ১৯ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

ভারতে আটক শাহিনের বাড়ি রাজশাহীতে

রাজশাহী ব্যুরো ৯:২১ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৬, ২০১৯

ভারতে আটক শাহিনের বাড়ি রাজশাহীতে

ভারতের কলকাতা পুলিশের হাতে আটকদের মধ্যে আল আমিন ওরফে শাহিনের (২৩) বাড়ি রাজশাহীতে। তিনি জেলার গোদাগাড়ী পৌর এলাকার বুজরুক রাজারামপুর গ্রামের এক রিকশা চালকের ছেলে।

মঙ্গলবার সকালে কলকাতার শিয়ালদহ স্টেশনের পার্কিং এরিয়া থেকে মহসিন ও মামুনুর রশিদ নামে জামাতুল মুজাহেদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) দুই সদস্যকে আটক করা হয়। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে হাওড়া স্টেশন থেকে আল-আমিন ওরফে শাহিন ও রবিউল নামের আরো দুই জেএমবি সদস্যকে আটক করে পুলিশ।

২০১৭ সালে বুজরুক রাজারামপুর গ্রামের আমিজুল ইসলাম রনি পুলিশের ওপর হামলা চালায়। পরে সে ‘বন্ধুকযুদ্ধে’ নিহত হয়। এই রনির সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল কলকাতা পুলিশের হাতে আটক আল আমিন ওরফে শাহিনের।

গোদাগাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আল আমিন ওরফে শাহিনকে আটক করতে পুলিশ তার বাড়িতে কয়েকবার অভিযান চালানো হয়েছে। তবে তাকে পাওয়া যায়নি। তিনি গোদাগাড়ী স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এসএসসি ও গোদাগাড়ী কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেছেন। তিনি নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের অনার্স ৩য় বর্ষের ছাত্র ছিলেন।

শাহিনের মা সাংবাদিকদের জানান, ২০১৮ সালের জুন মাসে পুলিশ আল আমিন ওরফে শাহিনকে আটক করতে বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশ শাহিনের ছবি, মোবাইল নম্বর ও বইপত্র নিয়ে যায়। এর পর থেকে সে নিখোঁজ ছিল। প্রায় এক বছর পরিবারের সঙ্গে শাহিনের কোনো যোগাযোগ নেই।

এদিকে, কলকাতা পুলিশের এসটিএফের জয়েন্ট সিপি শুভঙ্কর সিংহ ভারতীয় গণমাধ্যমকে জানান, আটকরা ইসলামিক স্টেটে (আইএস) অনুপ্রাণিত বাংলাদেশের নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন নব্য-জেএমবির সদস্য। বাংলাদেশে ব্যাপক অভিযানের কারণে তারা ভারতে পালিয়ে গা ঢাকা দেয়। তারা ফের বাংলাদেশ ফেরার ছক কষছিল। কিন্তু তার আগেই কলকাতা পুলিশের জালে ধরা পড়ে।

আটকদের কাছ থেকে ছবি, ভিডিও, মোবাইল ফোন ও আইএস মতাদর্শের বেশ কিছু প্রচার বই ও পত্রিকা পাওয়া গেছে।

জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন এলাকা থেকে টাকা সংগ্রহ করে তা ‘জঙ্গি’ কার্যকলাপে ব্যবহার করতো।

বিএইচএস/আরপি

 

রাজশাহী: আরও পড়ুন

আরও