বগুড়ায় ভোটার কম, ইভিএমে উচ্ছ্বাস

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ | ২ কার্তিক ১৪২৬

বগুড়ায় ভোটার কম, ইভিএমে উচ্ছ্বাস

বগুড়া প্রতিনিধি ১২:০৮ অপরাহ্ণ, জুন ২৪, ২০১৯

বগুড়ায় ভোটার কম, ইভিএমে উচ্ছ্বাস

বগুড়া-৬ (সদর) আসনের উপ-নির্বাচনে ভোট চলছে। সোমবার সকাল ৯টায় এই ভোট শুরু হয়। চলবে একটানা বিকেল ৫টা পর্যন্ত।

১৪১টি কেন্দ্রে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট হচ্ছে। এখন পর্যন্ত কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

শহরের সেন্ট্রাল স্কুল, জিলা স্কুল, করনেশন স্কুল, শহরতলীর এরুলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, ধরমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে শান্তিপূর্ণ ভোট হতে দেখা গেছে।

কিন্তু, ভোটার উপস্থিতি খুবই কম। নারী ভোটারদের উপস্থিতি একেবারেই নগণ্য। ইভিএমে ভোট হলেও ধমরপুর সরকারি বিদ্যালয় কেন্দ্রে দেড় ঘণ্টায় মাত্র ৬৮টি ভোট পড়েছে।

পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি সদস্যরা টহল দিচ্ছেন। নৌকা, ধানের শীষ ও লাঙ্গল প্রতীকের লোকেরা পাশাপাশি টেবিল-চেয়ারে বসে ভোটার স্লিপ দিচ্ছেন। ভোটারের চাপ না থাকায় তাদের হাসি-ঠাট্টা ও খোশ গল্প করতে দেখা যায়।

সময় কম লাগায় ইভিএম নিয়ে উচ্ছ্বাস

প্রথমবারের মতো ইভিএমে ভোট দিতে খুশি ভোটাররা। সময় কম লাগায় তারা উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন।

বগুড়া সদরের নুনগোলা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দেন মোজ্জাম্মেল হোসেন মন্ডল। তিনি জানান, মেশিনে ভোট দিতে পেরে অনেক ভাল লাগছে। গতবারের চেয়ে এবার অনেক কম সময় লেগেছে। কোনো ঝামেলা নেই।

জিলা স্কুল কেন্দ্র থেকে ভোট দিয়ে বেরিয়ে এসে আলহাজ তোফাজ্জল হোসেন বলেন, ‘ইভিএমে ভোট দিতে কোনো অসুবিধা হয়নি। অল্প সময়ে ভোট দিয়েছি।’

বিনা রানী নামে এক নারী ভোটারও একই অনুভূতির কথা জানান।

এই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার আবুল হোসেন জানান, তার কেন্দ্রে ১ হাজার ৯৭৭ ভোটের মধ্যে সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ৯৭টি ভোট পড়েছে।

বেলা ১১টায় শহরতলীর ধরমপুরের সরকারি প্রাথমিক কেন্দ্রের প্রিজাইডিং আফিসার ও বগুড়া সরকারি মহিলা কলেজের সহযোগী অধ্যাপক আইআরএম সাজ্জাদ হোসেন হোসেন জানান, তার কেন্দ্রে ৩ হাজার ৪০০ ভোটার। দেড় ঘণ্টায় মাত্র ৬৮টি ভোট কাস্ট হয়েছে।

শহরতলীর নুনগোলা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের নৌকা প্রতীকের পোলিং এজেন্ট রবিন, ধানের শীষের মাসুদ রানা ও লাঙ্গলের রাকিবুল হাসান জানান, কোনো সমস্যা হচ্ছে না। সুষ্ঠুভাবে ভোট হচ্ছে।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী টি জামান নিকেতা বলেন, ‘বগুড়ার উন্নয়নে ভোটাররা নৌকাকে বেচে নেবে।’

জয়ের ব্যাপারে তিনি খুবই আশাবাদী বলেও জানান।

বিএনপি প্রার্থী গোলাম মো. সিরাজ বলেন, ‘এখন পর্যন্ত শান্তি পূর্ণভাবে ভোট চলছে। আশা করছি, শেষ পর্যন্ত এ ধারা বজায় থাকবে।’

তিনি বলেন, ‘ভোটার উপস্থিতি বেশি হলে ধানের শীষের ভোট বাড়বে। শান্তিপূর্ণ ভোট হলে ইনশাআল্লাহ আমিই বিজয়ী হব।’

বগুড়ার সিনিয়র নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মাহবুব আলম শাহ বলেন, ‘পরিস্থিতি স্বাভাবিক। শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হচ্ছে। কোথাও কোনো গোলযোগ নেই। ভোটার উপস্থিতি কম, আশা করছি ক্রমেই তা বাড়বে।’

এএইচ/আইএম

 

রাজশাহী: আরও পড়ুন

আরও