বগুড়ার ধর্ষক তুফানের ভাই মতিন ফের কারাগারে

ঢাকা, ২২ জুলাই, ২০১৯ | 2 0 1

বগুড়ার ধর্ষক তুফানের ভাই মতিন ফের কারাগারে

বগুড়া প্রতিনিধি ১২:২৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৪, ২০১৯

বগুড়ার ধর্ষক তুফানের ভাই মতিন ফের কারাগারে

সারাদেশে বহুল আলোচিত বগুড়ার শ্রমিক লীগ নেতা ধর্ষক তুফান সরকারের বড় ভাই শহর যুবলীগের বহিষ্কৃত যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এবং জেলা ট্রাক মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মতিন সরকারকে ফের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সোয়া ২ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ ক্রোক এবং ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের হিসাব জব্দ সংক্রান্ত মামলায় তাকে জেল-হাজতে পাঠানো হয়েছে।

হাইকোর্ট থেকে ৬ সপ্তাহের জামিনের সময় শেষে মঙ্গলবার বিকেলে বগুড়ার দায়রা আদালতে হাজির হয়ে জামিন চাইলে শুনানি শেষে বিচারক নরেশ চন্দ্র সরকার তার জামিন না মঞ্জুর করে জেলা কারাগারে পাঠানোর নিদের্শ দেন।

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) বগুড়ার সমন্বিত কার্যালয়ের কোর্ট পরিদর্শক নিতিথ কুমার ঘোষ জানান, মতিন সরকারের সোয়া ২ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ ক্রোক এবং ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের হিসাব জব্দ মামলায় হাইকোর্ট থেকে ৬ সপ্তাহের জামিনের সময় শেষে মঙ্গলবার বিকেলে বগুড়ার দায়রা আদালতে হাজির হয়ে জামিন চাইলে শুনানি শেষে বিচারক তার জামিন না মঞ্জুর করে জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মতিন সরকার বগুড়ার বহুল আলোচিত কিশোরী ধর্ষণ ও মা-মেয়েকে নির্যাতনের পর মাথা ন্যাড়া করে দেওয়া সংক্রান্ত মামলার প্রধান আসামি বহিষ্কৃত শ্রমিক লীগ নেতা তুফান সরকারের বড় ভাই। ওই ঘটনায় তুফান সরকারের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা দুটির চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। বর্তমানে তুফান বগুড়া কারাগারে আছেন।

২০১৭ সালের জুলাই মাসের ওই ঘটনায় গত কয়েক দিন আগে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ তার জামিন নামঞ্জুর এবং মামলাটি ছয় মাসের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে বগুড়ার আদালতকে নির্দেশ দিয়েছেন।

তুফানের এই ঘটনার পর তার ভাই শহর যুবলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মতিন সরকারকেও বহিষ্কার করা হয়। এর পর দুদক বগুড়া সমন্বিত কার্যালয় থেকে তুফান ও মতিনের সম্পদের অনুসন্ধান শুরু করে। ২০১৮ সালের ৬ মার্চ মতিন সরকার ও ৭ মার্চ তুফান সরকারকে চিঠি দিয়ে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সম্পদ বিবরণী দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়। মতিন ২৫ মার্চ ও তুফান ২৭ মার্চ সম্পদের হিসাব দাখিল করেন।

তদন্তে দুদক কর্মকর্তারা মতিনের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে তিন কোটি টাকার সম্পদ অর্জন ও প্রায় সোয়া দুই কোটি টাকার সম্পদের তথ্য গোপনের প্রমাণ পায়। একইভাবে তার ছোট ভাই তুফানের বিরুদ্ধেও অসাধু পন্থায় প্রায় এক কোটি ৬০ লাখ টাকার সম্পদ অর্জন ও প্রায় ৩০ লাখ টাকার সম্পদের তথ্য গোপনের প্রমাণ মেলে। তদন্তকারী কর্মকর্তা দুদক বগুড়া সমন্বিত কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আমিনুল ইসলাম ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর সদর থানায় মতিন ও তুফানের বিরুদ্ধে পৃথক মামলা করেন।

প্রসঙ্গত, মতিন সরকার হত্যা মামলায় দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর গত বছর কয়েক দিন কারাবাস করে হাইকোর্টের নির্দেশে জামিনে ছিলেন।

অন্যদিকে, মতিনের বড় ভাই জাহাঙ্গীর গত বছর মাদকবিরোধী অভিযানে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মারা গেছে।

এএইচ/আরপি

 

রাজশাহী: আরও পড়ুন

আরও